অধ্যক্ষসহ ৩ জন শিক্ষিক বরখাস্থ

শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর (১৫) ‘আত্মহত্যার’ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে বুধবার (৫ ডিসেম্বর) পরীক্ষা না দিয়ে সকাল থেকে বিক্ষোভ করছেন ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা। সকাল ৯টা থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির বেইলি রোড ক্যাম্পাসের ১ নম্বর গেটের সামনে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেন।

শিক্ষার্থীরা দাবি, তিন দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিয়ে দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। এ সময় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এ ঘটনাকে হত্যাকান্ড উল্লেখ করে প্রিন্সিপাল ও গভর্নিং বডির পদত্যাগ দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

এ সময় শিক্ষার্থীরাশিক্ষার্থীরা ‘তোমরা ক্ষমা করোনি, আমরা ক্ষমা করবো না’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘অরিত্রী হত্যার বিচার চাই’, ‘সইবো না, সইবো ন, বাবার অপমান সইবো না’ এমন স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন।

এর আগে একই দাবিতে মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) দিনভর ভিকারুননিসার বেইলি রোড ক্যাম্পাসের সামনের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনার জন্য অধ্যক্ষসহ ৩ জন শিক্ষিককে বরখাস্ত কারা হয়।

প্রসঙ্গত, সোমবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে শান্তি নগরের নিজ বাসা থেকে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই শিক্ষার্থীর পরিবারের দাবি, অরিত্রীর বিরুদ্ধে ফাইনাল পরীক্ষায় নকলের অভিযোগ তুলে তার বাবাকে ডেকে পাঠায় স্কুল কর্তৃপক্ষ। পরে অরিত্রির বাবাকে জানানো হয় তার মেয়েকে টিসি দেওয়া হবে। এ সময় প্রতিষ্ঠানটির প্রিন্সিপাল ও ভাইস-প্রিন্সিপাল এই কিশোরীর সামনে তার বাবাকে অপমান করেন। টিসি দেওয়ার হুমকি ও বাবাকে অপমান সইতে না পেরে সে আত্মহত্যা করেছে বলে তার পরিবার অভিযোগ করেছে।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি