অন্ধকারে ডুবে থাকার গান গাইলেন বেসবাবা সুমন

ক্যানসার শরীরে দানা বাঁধলেও নিজের আবেগি ও উদ্দাম গিটারে হাত রেখে ঝড় তুলেছেন দেশের জনপ্রিয় রক ব্যান্ড ‘অর্থহীন’-এর দলনেতা সাইদুস সালেহীন খালেদ সুমন। বাংলা রক গানে এক মদকতার নাম বেসবাবা সুমন।

গানের মানুষ গান গাইবেন। কিন্তু গানের মানুষের কণ্ঠে গান শোনা না গেলে শ্রোতারা যেমন কষ্ট পান ঠিক তেমনি কষ্টের ব্যাথা আরও তীব্র অনুভব করেন শিল্পী নিজেই। সেই আত্মচিৎকার নতুন গানের কথায় ও সুরে টেনে আনলেন সুমন।

বেসবাবা সুমন আবারও প্রায় দুই বছরের অসুস্থতাকে পিছনে ফেলে নতুন গানে সেই চিরচেনা সুরে গাইলেন ‘বয়স হলো আমার’। গানটি লিখেছেন এবং সুর করেছেন সুমন নিজেই। সংগীত পরিচালনা ও গিটারে ছিলেন মাহান ফাহিম।

সম্প্রতি অন্তর্জালে প্রকাশ পেয়েছে গানভিডিওটি। প্রকাশের পর এই মিউজিক ভিডিওটি নতুন আবেগের জন্ম দিয়েছে। দর্শক-ভক্ত-শ্রোতাদের ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছে সুমনের গাওয়া নতুন এই গানটি।

গানটি প্রসঙ্গে বেসবাবা সুমন জানান, এই গানটি তার ধীরে ধীরে বয়স বেড়ে যাবার গান, এটি তার গত দু-বছরের প্রায় পঙ্গু হয়ে বিছানায় পরে থাকার গান, এটি তার অন্ধকারে ডুবে যাবার গান, এটি আমার রাতের পর রাত প্রচণ্ড ব্যথায় চিৎকার করার গান।

সবশেষ বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে সবশেষ মঞ্চে অসুস্থ বেসবাবা সুমন ভক্তদের বলেছিলেন, শেষ স্টেজে ওঠা এটাই হোক…। ক্যানসার ও স্পাইনাল কর্ডের শারীরিক জটিলতায় সে সময় জার্মানি যাওয়ার কথা ছিল এই সংগীত তারকার। চিকিৎসা শেষে পাঁচ মাস পর আগস্ট মাসে দেশে ফেরেন সুমন।