আজ মধ্যরাত থেকে বন্ধ হচ্ছে চসিকের প্রচারণা: শেষ মুহুর্তের প্রচারনায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

৩০

আগামী ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আজ সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। শেষ মুহূর্তের প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থী ও দলীয় নেতাকর্মীরা। দম ফেলার ফুরসত মেলেনি এই কদিন।

আজ প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। চট্টগ্রাম সিটি করপোরশন নির্বাচনে এবার প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। একই সঙ্গে সবকটি কেন্দ্রে ইভিএম মেশিনে ভোটগ্রহণ করা হবে। তবে কাউন্সিলর প্রার্থীরা লড়বেন নিজস্ব প্রতীক নিয়ে। তবে এবার কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে একক প্রার্থিতা ঘোষণা করেছে বড় দুই দল আ. লীগ ও বিএনপি। শেষমুহূর্তে প্রচারণা তুঙ্গে রয়েছে। প্রধান দুই দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতি প্রচারণায় ভিন্নমাত্রা যোগ হয়েছে। প্রচারণার শুরু থেকে বড় দুই দল ভিন্নভাবে প্রচারণায় নেমেছে। সরকারি দল আওয়ামী লীগ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ও বিএনপি ভোটারাধিকার, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের স্লোগান নিয়ে মাঠে নেমেছিল।

আজ সোমবার দুপুরে দুপুরে নগরের বহদ্দারহাট এলাকায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরীকে সঙ্গে নিয়ে মিছিল করেছে মহানগর আওয়ামী লীগ। মিছিলে অংশ নেন মেয়র পদপ্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনানসহ আরো অনেকে। এ সময় আওয়ামী লীগ নেতারা রেজাউল করিম চৌধুরীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন। ২৭ জানুয়ারি নির্বাচনে শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দিতে আহ্বান জানান তারা। পরে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন নেতৃবৃন্দরা।

রিটার্নিং অফিসার ও চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জান বলেন, ‘নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী আজ সোমবার রাত ১২টা থেকে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধ হয়ে যাবে।’

চসিক নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার নয় লাখ ৯২ হাজার ৩৩ জন ও মহিলা ভোটার নয় লাখ ৪৬ হাজার ৬৭৩ ভোট। ৭৩৫ ভোটকেন্দ্রে ভোট দেবেন ভোটাররা। এরমধ্যে স্থায়ী ৭৩৩ ও অস্থায়ী কেন্দ্র দুটি। ভোটকক্ষ চার হাজার ৮৮৬টি। স্থায়ী ভোটকক্ষ ৪,১২২টি ও অস্থায়ী কক্ষ ৭৬৪টি। সব কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট হবে। মেয়র পদে সেই অতিপরিচিত নৌকা প্রতীকে মাঠে রয়েছেন নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এম রেজাউল করিম চৌধুরী। ধানের শীষ প্রতীকে রয়েছেন বিএনপি আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন। এছাড়াও মাঠে রয়েছেন আরো ৫ মেয়র প্রার্থী। ২২৫ জন কাউন্সিলর প্রার্থী।