আসন্ন সিরিজগুলোতে অন্যদের সাথে বাংলাদেশকেও ডাকবে নিউজিল্যান্ড

৩৬

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট জানিয়েছে তাদের আসন্ন হোম সিরিজগুলো নির্ধারিত পরিকল্পনা অনুসারেই আয়োজন করা হবে। বাংলাদেশ, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সামনের ঘরোয়া মৌসুমে নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছ।

তবে, নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট এ সফরের সময়সূচি সম্পর্কে কিছু জানাননি।

নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট বলেছেন, ওয়ালিংটনের কর্মকর্তাদের সাথে মিলে সফরকারী দলগুলোর জন্য আইসোলেশনের ব্যবস্থা করতে এখনও কাজ করে যাওয়া হচ্ছে। তবে, এ সফরগুলো ঠিক সময়মতোই মাঠে গড়াবে।

ডেভিড হোয়াইট জানান, ‘আমি মাত্রই ওয়েস্ট ইন্ডিজের কর্মকর্তাদের সাথে ফোনে কথা বললাম। তারা আসার ব্যাপারে রাজি হয়েছেন। পাকিস্তান দলের পক্ষেও নিশ্চিত করা হয়েছে, অস্ট্রেলিয়া এবং বাংলাদেশও তাই। সবগুলো মিলিয়ে ৩৭ দিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটময় দিন পার করবে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট ‘

অবশ্য সব কিছু চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত সফরসূচি নিয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি ডেভিড হোয়াইট।

নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটের প্রধান জানান, ইংল্যান্ড সফরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে যেসব ব্যবস্থা করা হয়েছে তার সেরকমই সবকিছু করা হবে। ম্যাচ ভেন্যুতেই খেলোয়াড়দের থাকার ও অনুশীলনের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের ধারণা নিয়েই আমরা এ মুহুর্তে সরকারি সংস্থাগুলোর সাথে কাজ করে যাচ্ছি।’

নিউজিল্যান্ড তাদের দেশে বিভিন্ন দেশ থেকে আগতদের কঠোরভাবে তদারকি করে পৃথকভাবে কমপক্ষে ১৪দিন আইসোলেশন থাকার ব্যবস্থা করছে। তবে নিউজিল্যান্ডের স্থানীয়দের প্রায় স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরে গেছে।

দেশটিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বাধ্যবাধকতা নেই এবং খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানগুলোতেও দর্শকদের অনুমতি মিলেছে।

দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশটি নিউজিল্যান্ডে ৫০ লাখ মানুষের বসবাস। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনাভাইরাসে মাত্র ২২ জনের মৃত্যুর রেকর্ড করা হয়েছে। গত সপ্তাহে কোনো ধরনের কমিউনিটি সংক্রমণ না হওয়ার ১০০তম দিন পার করেছে দেশটি। সূত্র: ইউএনবি

You might also like