এই মেয়াদই শেষ, আর প্রধানমন্ত্রী হতে চান না শেখ হাসিনা

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এটি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার শেষ মেয়াদ। তিনি আর প্রধানমন্ত্রী হবেন না। জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলেকে গতকাল দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, নতুনদের হাতে দায়িত্ব তুলে দিতে চান তিনি।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিজয়ী হয় আওয়ামী লীগ। ফলে টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। ডয়েচে ভেলের পক্ষ থেকে জানতে চাওয়া হয় তার ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক পরিকল্পনার বিষয়ে। তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তিনি বর্তমানে চতুর্থ মেয়াদে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু এবারই শেষবার। তিনি আর প্রধানমন্ত্রী হতে চান না। তিনি মনে করেন, নতুনদের সুযোগ পাওয়া উচিত।

সাক্ষাৎকারে মত প্রকাশের স্বাধীনতার বিষয়েও তার অবস্থান জানতে চাওয়া হয়। জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তিনি তা নিশ্চিতে পদক্ষেপও নিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাংলাদেশ বহু বছর ধরে সামরিক শাসনের অধীনে ছিল। তখন দেশে একটিমাত্র টেলিভিশন চ্যানেল চলত, যা ছিল রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর তিনি বেসরকারি খাতে টেলিভিশন চ্যানেল চালুর অনুমতি দেন, যা মত প্রকাশের স্বাধীনতার দ্বার উন্মুক্ত করেছে।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি