করোনার কারণে এবার ইউএস ওপেন থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিলেন ওয়ারিঙ্কা

নিউ ইয়র্কের বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে সন্তুষ্ট হতে না পেরে ইউএস ওপেন থেকে এবার নাম প্রত্যাহার করে নিলেন স্ট্যান ওয়ারিঙ্কা। এর ফলে বছরের তৃতীয় এই গ্র্যান্ড স্ল্যাম আরো একবার অনিশ্চয়তার মুখ দেখলো।

২০১৬ সালের ইউএস ওপেন বিজয়ী সুইস তারকা ওয়ারিঙ্কার নাম ইতোমধ্যেই এন্ট্রি লিস্ট থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। এর আগে করোনা আতঙ্কে না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন চারবারের চ্যাম্পিয়ন রাফায়েল নাদাল। ৩৫ বছর বয়সী ওয়ারিঙ্কা এখন রোলা গ্যাঁরোর প্রতি মনোযোগী হবেন বলে নিশ্চিত করেছেন। এখানেই ২০১৫ সালে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় মেজর শিরোপা জয় করেছিলেন। ২০১৪ সালের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন বিজয়ী বিশ্বের ১৭ নম্বর এই খেলোয়াড় বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র বিশেষ করে নিউ ইয়র্কের স্বাস্থ্য পরিস্থিতি মোটেই সন্তোষজনক নয়। এই ধরনের পরিস্থিতিতে আমি যুক্তরাষ্ট্রে যেতে চাইনা।’

পূর্ব নির্ধারিত সূচী অনুযায়ী আগামী ৩১ আগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে ইউএস ওপেন। করোনাভাইরাস মহামারী ঠেকাতে এই টুর্নামেন্টকে ঘিড়ে আয়োজকদের কঠোর স্বাস্থ্যবিধি প্রনয়ন করতে হচ্ছে। যদিও ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে দর্শকবিহীন স্টেডিয়ামে।

ইতোমধ্যেই মে-জুনে অনুষ্ঠিতব্য ফ্রেঞ্চ ওপেন অনুষ্ঠানের তারিখ পরিবর্তন করে ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ওয়ারিঙ্কা বলেন, সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে কোয়ারান্টাইন ইস্যুতে এখনও অনিশ্চয়তা রয়েছে। সে কারনেই আমার মনে ইউএস ওপেন ঘিড়ে এখনো অনেক প্রশ্ন ও শঙ্কা রয়েছে।

এর আগে বিশ্বের এক নম্বর নারী খেলোয়াড় এ্যাশলে বার্টিসহ শীর্ষ ১০ জন খেলোয়াড়ের মধ্যে এলিনা সেভিতোলিনা কিকি বার্টিনস ইউএস ওপেন থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন।