করোনা মোকাবিলায় আরো কার্যকর স্বাস্থ্য খাত গড়ে তোলার জন্য রাষ্ট্রপতির আহ্বান

রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ আগামী দিনে কোভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) মহামারীর মতো বিভিন্ন মারাত্মক রোগ মোকাবেলার লক্ষ্যে দেশের স্বাস্থ্য খাতকে আরও কার্যকর ও গতিশীল করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

বুধবার কিশোরগঞ্জে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমাদের উদ্ভাবনী কৌশল নিয়ে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে এবং আগামী বছরগুলোতে করোনাভাইরাসের মতো সংকট মোকাবেলায় একটি অধিক কার্যকর স্বাস্থ্য খাত গড়ে তুলতে হবে।

চিকিৎসা পেশাকে খুবই চ্যালেঞ্জিং উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের এখনও আরও দক্ষ মানবসম্পদ বিশেষ করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, নার্সিং স্টাফ এবং চিকিৎসা প্রযুক্তিবিদদের প্রয়োজন’।

রাষ্ট্রপ্রধান বলেন, যদিও আমরা স্বাস্থ্যসেবা খাতে অসাধারণ সাফল্য অর্জন করেছি, কোভিড মহামারী আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার কিছু ত্রুটিও উন্মোচিত করেছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, কোভিড-১৯ মহামারীর তৃতীয় দফা সংক্রমনের সময়, যেখানে অনেক উন্নত দেশ তাদের অত্যন্ত দক্ষ স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা থাকা সত্ত্বেও ব্যাপকভাবে কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছে, তখন বাংলাদেশ যথেষ্ঠ দক্ষতার সাথে সংকট কাটিয়ে ওঠতে সক্ষম হয়েছে।

স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রগতির কথা তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি হামিদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে বাংলাদেশ সফলতা ও দক্ষতার সাথে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি উল্লেখ করেন, করোনা মহামারী সফলভাবে মোকাবিলা, অর্থনৈতিক পরিস্থিতি পুনরুদ্ধার এবং জীবিকা সচল রাখার ক্ষেত্রে মার্কিন বার্তা সংস্থা ব্লুমবার্গ পরিচালিত ‘কোভিড রেজিলিয়েন্স র‌্যাঙ্কিং’-এ বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম এবং বিশ্বে বিশতম স্থানে রয়েছে।