করোনা সনদ ছাড়াই যাত্রী আনায় তার্কিশ এয়ারলাইন্সকে জরিমানা

১০৫

করোনা নেগেটিভ সনদ ছাড়াই তিন যাত্রীকে নিয়ে আসায় তার্কিশ এয়ারলাইন্সকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করেছে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কতৃর্পক্ষ।

জানা যায়, গত ১৩ জানুয়ারি দুপুরে ইস্তাম্বুল থেকে তার্কিশ এয়ারলাইন্সের যে ফ্লাইটটি ঢাকা এসে পৌঁছায়, সেখানে তিন যাত্রীর সাথে কোভিড পরীক্ষার কোন সনদ ছিল না। যাত্রীরা বাংলাদেশি, একই পরিবারের সদস্য এবং যুক্তরাষ্ট্র থেকে যাত্রা করে ইস্তাম্বুল হয়ে ঢাকায় পৌঁছান। ঐ তিন যাত্রী যুক্তরাষ্ট্র থেকে যাত্রা করার আগে একজন ডাক্তারের কাছ থেকে চেকআপ করিয়ে এই মর্মে সনদ নেন যে, কোভিডের কোনো লক্ষণ তাদের নেই। কিন্তু কোভিড শনাক্তকরণের জন্য নির্ধারিত পিসিআর টেস্ট তারা কেউ করাননি।

পিসিআর টেস্ট রিপোর্ট ছাড়া কোনো যাত্রীকে ফ্লাইটে উঠালে ওই ফ্লাইট ঢাকায় পৌঁছার পর জরিমানা গুণতে হবে। এটা জেনেই তারা ঐদিন ইস্তাম্বুলে ঢাকা যেতে ইচ্ছুক ১০জন যাত্রীর সাথে কোভিড পরীক্ষার সনদ না থাকায় তাদের অফলোড করে দিয়েছিল বলে জানায়। এরপরেও চেকইনের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিবিশেষের ভুলে যুক্তরাষ্ট্র থেকে যাত্রা করা তিন যাত্রী ঢাকায় চলে আসেন।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ জামিল জানান, যাত্রীরা ভুলে সনদ কোথাও ফেলে এসেছেন কিনা সেটি খতিয়ে দেখতে তাদের জরিমানা করার আগে সময় দেওয়া হয়েছিল। পরে এয়ারলাইন্স কতৃর্পক্ষ নিশ্চিত হয়, তারা কোনো কোভিড নেগেটিভ সনদ নিয়ে আসেন নি। বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে পিসিআর টেস্টের রিপোর্ট ছাড়া যাত্রী আনায় তার্কিশ এয়ারলাইন্সকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। পরে, কোভিড পরীক্ষা না করিয়ে যে তিনজন যাত্রী ঢাকায় আসেন তাদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।