কুড়িগ্রামে ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি, পানিবন্দি প্রায় তিন লক্ষ মানুষ

টানা বৃষ্টিতে কুড়িগ্রামে আবারও নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ধরলা নদীর পানি ১০ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পাওয়ায় পুনরায় পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন নদী তীরবর্তী বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ।

এছাড়া ব্রহ্মপুত্র নদের পানি অপরিবর্তিত থাকলেও বিপদ সীমার ওপরে অবস্থান করায় টানা প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে অবর্ণনীয় কষ্টের মধ্যে রয়েছেন সাধারণ মানুষ।

এদিকে, চিলমারী উপজেলার কাঁচকোল এলাকায় ভাঙা রাস্তা দিয়ে বন্যার পানি প্রবেশ করে উপজেলা শহরসহ নতুন করে আরও ৫০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

জেলায় পানিবন্দী হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন প্রায় তিন লাখ মানুষ। ৫৬ ইউনিয়নের ৪৭৫টি গ্রাম পানির নীচে তলিয়ে আছে।

বন্যার্তদের জন্য উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে এখন পর্যন্ত ১৭০ মেট্রিক টন জিআর চাল ও ৯ লাখ টাকার ত্রাণ সরবরাহ করেছে সরকার। শিশু খাদ্য ও গবাদি পশুর জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে চার লাখ টাকা।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, সোমবার সকালে ধরলা নদীর পানি ব্রিজ পয়েন্টে বিপদ সীমার ৪৯ সেন্টিমিটার, ব্রহ্মপুত্র নদের পানি চিলমারীতে ৫৫ ও নুনখাওয়া পয়েন্টে ৪০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সূত্র: ইউএনবি