ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলায় নিহত অর্ধশত

ক্রাইস্টচার্চেরদুটি মসজিদে চালানো হামলায় অন্তত ৪০ জন নিহত ও ২০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন। এই হামলাকে সন্ত্রাসী হামলা অভিহিত করে তিনি বলেন, এই পর্যায়ে অন্য কোনও কিছুকে সন্দেহ করার মতো কিছু নেই। আর এখন আমরা কোনও কিছু ধারণা করতে চাই না।

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলা
ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলা

স্থানীয় সময় আজ (শুক্রবার) নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে বন্দুকধারীর হামলা হয়। শহরের হাগলি পার্কমুখী সড়ক দীন এভিনিউতে আল নুর মসজিদ এবং লিনউডের আরেকটি মসজিদের কাছ থেকে গুলির শব্দ শোনা যায়। হামলার পর পুলিশের তরফ থেকে বেশ কয়েকজন হতাহত হওয়ার কথা জানালেও সংখ্যা নিশ্চিত করেনি তারা। পরে এক সংবাদ সম্মেলনে হতাহতের সংখ্যা নিশ্চিত করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী।

তিনি জানান, হামলার ঘটনায় আল নুর মসজিদেই ৩০ জন নিহত ও লিনউডের মসজিদটিতে ১০ জন নিহত হয়েছে। এছাড়াও মারাত্মক আহত ২০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলা
ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলা

আরডার্ন বলেন, সহিংস হামলার জন্য নিউ জিল্যান্ডকে বেছে নেওয়া হয়েছে। কারণ, এটা বৈচিত্রপূর্ণ সংস্কৃতি, গ্রহণযোগ্যতার উদাহরণ। তিনি বলেন, আমরা বর্ণবাদকে ঘৃণা করি। আমরা সেসব শরণার্থীর সঙ্গেই আমাদের ঘর ভাগ করে নিই, যারা আমাদের মূল্যবোধ ধারণ করেন। এই হামলার মধ্য দিয়ে ওই মূল্যবোধকে ক্ষতিগ্রস্তÍ করা যাবে না। দুইশ’রও বেশি নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী ও ১৬০টির বেশি ভাষার অধিকারী আমরা এক গর্বিত জাতি।

 

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি