গুগলকে টেক্কা দিতে নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিন আনছে অ্যাপল

১৯

যেকোনো ধরণের প্রশ্নের উত্তর পেতে বা কৌতূহল মেটাতে, প্রতিদিন বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ ব্যবহার করে থাকে গুগল সার্চ ইঞ্জিন। এর মাধ্যমে প্রায় দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে ইন্টারনেট জগতে একক আধিপত্য ধরে রেখেছে গুগল। কিন্তু গত আগস্ট মাসে শোনা যায়, গুগলকে টেক্কা দিতে আটঘাট বেধে মাঠে নামছে বিশ্বের অন্য আরেকটি জনপ্রিয় টেক জায়ান্ট অ্যাপল।

ওই সময় বিভিন্ন প্রতিবেদনে বলা হয়, গুগলের মত নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিন আনার কথা ভাবছে মার্কিন এ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান। এই খবর প্রকাশের পর প্রায় দু-মাস অতিবাহিত হয়েছে। সম্প্রতি আবার জল্পনা শুরু হয়েছে শিগগিরই গুগল সার্চের নিজস্ব বিকল্প তৈরি করতে কাজ শুরু করছে আইফোন নির্মাতা।

ফিনান্সিয়াল টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গুগলের বিকল্প সার্চ ইঞ্জিন তৈরি করতে ইতোমধ্যেই পরীক্ষা নিরীক্ষা শুরু করেছে অ্যাপল এবং সংস্থার ইঞ্জিনিয়ারিং টিম কাজ শুরু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। মনে করা হচ্ছে, অ্যাপলের পরবর্তী অপারেটিং সিস্টেম iOS 14-এর সাথে এই নতুন সার্চ ইঞ্জিনটি সংযুক্ত করা হতে পারে। যদি iOS-এর সাথে এই বড়সড় পরিবর্তনটি অন্তর্ভুক্ত করা সম্ভব না হয় তবে পরবর্তী macOS বা iPadOS থেকে গুগল সার্চ অপশনটি সরাতে পারে অ্যাপল। ইতিমধ্যেই অ্যাপলের ডিভাইসগুলোতে ওয়েব সার্চের জন্য বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে সংস্থাটি।

শুধু তাই নয়, অ্যাপল ইতোমধ্যেই অ্যাপেলবট নামে একটি ওয়েব ক্রলারের মালিক হয়েছে এবং একটি বড় ডেটা ব্যাংক তৈরি করতে কাজ করছে। অ্যাপলবট, সংস্থাটিকে রেগুলার বেসিসে বিভিন্ন ওয়েবসাইট পরিচালনা করতে এবং নির্ভুল সার্চ রেজাল্ট সরবরাহ করতে সাহায্য করে।

গত আগস্টের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়, অ্যাপল ও গুগলের মধ্যকার একটি গুরুত্বপূর্ণ চুক্তি শেষ হতে চলেছে। আর সেই কারণেই এমন বড়সড় পদক্ষেপ নিতে চলেছে অ্যাপল। চুক্তি অনুযায়ী, এতদিন অবধি অ্যাপলের সাফারি ব্রাউজারে ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে থাকতে প্রতি ৮-১২ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে গুগল। তবে এই কারণে মার্কিন মার্কেট অথরিটির একাংশ উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যে, অ্যাপল ও গুগল একচেটিয়াভাবে বাজার দখল করে রাখছে।

এমনকি ইন্টারনেট সার্চ বিভাগ অবৈধভাবে একচেটিয়াকরণের পরিপ্রেক্ষিতে মার্কিন জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগলের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বলেও শোনা যাচ্ছে। ফলে আগামী দিনে গুগলের কাছ থেকে বিনিয়োগ তো পাওয়া যাবে না, আবার গুগল সার্চের শক্তিশালী বিকল্প প্রয়োজন হবে অ্যাপলের। সুতরাং, সাত-পাঁচ ভেবেই অ্যাপল এখন নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিন তৈরির পথে হাঁটছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই! তবে গুগল বা অ্যাপল কেউই এই বিষয়ে এখনো অবধি মুখ খোলেনি।

You might also like