গোপন মিসাইল ঘাঁটির কাছেই কি বিস্ফোরণ? রহস্য বাড়ছে ইরানে

সপ্তাহ খানেক আগে ইরানে এক ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে, যা নিয়ে রয়েছে রহস্য। কোথায় হল বিস্ফোরণ? কোথা থেকে সূত্রপাত? তা এখনও স্পষ্ট নয়।

গত সপ্তাহে ইরানের আকাশ কেঁপে ওঠে সেই বিস্ফোরণে। চারপাশ আলো হয়ে যায়। মনে করা হচ্ছে ইস্ট তেহরানের কাছে পাহাড়ি এলাকায় কোনও গোপন মিসাইল ফ্যাক্টরির কাছে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে। স্যাটেলাইট ইমেজে ধরা পড়েছে কিছু পোড়া পোড়া ছবি, যা ইরানের খোজির মিসাইল প্রোডাকশন কমপ্লেক্সের কাছে।

ইরানের মিডিয়া দাবি করছে গ্যাস কারখানায় হয়েছিল ওই বিস্ফোরণ। কিন্তু মনে করা হচ্ছে, সেটা পুরো সত্যি নয়।

মধ্যপ্রাচ্যের সংবাদমাধ্যম আল-আইনে দাবি করা হয়েছে যে ইরানের এই দাবি সত্য নয়। ইমেজ দেখে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, বাইরে থেকে কোনও বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। সেখানে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, এরকম বিস্ফোরণ প্রথমবার ঘটেনি।

ইরান বলছে এই বিস্ফোরণ হয়েছে পারচিনে যা খোজির থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে। মনে করা হচ্ছে, খোজিরের গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্যই এই পারচিনের কথা উল্লেখ করছে ইরান।

ইরানের ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ রেজিসট্যান্স দাবি করছে, খোজির হল ইরানের ডিফেন্স মিনিস্ট্রির গোপন জায়গা। যার কোড নেম B1-Nori-8500.

জানা গিয়েছে, ওই বিস্ফোরণ ঘরবাড়িকে কাঁপিয়ে দিয়েছিল, জানালাগুলি ভেদ করে যায় আওয়াজ। শুক্রবার ভোরে আলবার্জ পর্বতমালায় দিগন্তকে আলোকিত করে দিয়েছিল ওই বিস্ফোরণ।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র দাউদ আবদী বিস্ফোরণকে তিনি চিহ্নিত না হওয়া একটি ফুটো গ্যাসের জন্য দোষারোপ করেছেন এবং বলেছিলেন যে বিস্ফোরণে কেউ নিহত হয়নি।

সামরিক আধিকারিকরা এবং বেসামরিক দমকলকর্মীরা কেন দায়িত্বে থাকবে না এই প্রশ্ন উত্থাপন করে আবদী এই সাইটটিকে একটি “জনসাধারণ অঞ্চল” হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন। রাষ্ট্রীয় টিভি রিপোর্টে এর জবাব দেয়নি। সূত্র: কলকাতা ২৪