চাকরি প্রার্থীদের বয়সে ছাড় দিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব

করোনাভাইরাস মহামারিতে বিধিনিষেধের কারণে সরকারি চাকরিপ্রার্থীদের বয়স সব মিলিয়ে মোট ২১ মাস ছাড় দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। অবশ্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সূত্রগুলো বলছে, বিসিএসের জন্য এ ছাড় হবে না।

প্রতিমন্ত্রী জানান, ‘করোনার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আমরা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে প্রণোদনা দিয়েছি। সেক্ষেত্রে চাকরিপ্রার্থীদের জন্য আবার নতুন করে একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে। গত বছরও আমরা এটা করেছিলাম।’

গত বছরের ২৫ মার্চ পর্যন্ত যাঁদের বয়স ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছে, আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সরকারি চাকরির নিয়োগে যত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে, সেখানে তাঁদের আবেদনের সুযোগ থাকবে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিলে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। তখন এটি সরকারি সব প্রতিষ্ঠানের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত তারা যেসব বিজ্ঞাপন দেবে, সেই বিজ্ঞাপনে উল্লেখ করবে, যাঁদের বয়স গত বছরের ২৫ মার্চ ৩০ বছর হয়েছে, তাঁরা আবেদন করতে পারবেন।

বর্তমানে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ বছর। বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে ৩২ বছর। করোনা মহামারির কারণে এর আগে প্রথম দফায় সাধারণ ছুটির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত চাকরিপ্রার্থীদের বয়সের ক্ষেত্রে ছাড় দেয় সরকার। তখন গত ২৫ মার্চ যাদের বয়স ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছিল, তাদের আগস্ট পর্যন্ত সরকারি চাকরিতে আবেদনের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল।

You might also like