ঝালকাঠির গাবখান সেতুর সড়কবাতি নষ্ট, বিপাকে চলাচলকারীরা

ঝালকাঠির গাবখান সেতু দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহনের চলাচল। কিন্তু, সন্ধ্যা হলেই আলো স্বল্পতার কারণে প্রায় সময়ই ঘটে ছোট-খাটো দুর্ঘটনা।

বরিশাল-খুলনা মহসড়কের ঝালকাঠিতে নির্মিত এই সেতু দিয়ে প্রতিদিন হাজারো যানবাহনের চলাচল। ৫ম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু হলেও গাবখান চ্যানেলের ওপর নির্মাণ করায় এটি গাবখান সেতু নামেই বেশি পরিচিত। নয়নাভিরাম এ সেতুতে প্রতিদিন শত শত দর্শনার্থী ও পর্যটক আসেন ঘুরতে।

গুরুত্বপূর্ণ এই সেতুর ৬২টি বাতির মধ্যে ৪০টিই গত প্রায় ৬ মাস ধরে নষ্ট। ফলে, সন্ধ্যা হতে না হতেই অন্ধকার নেমে আসে সেতুতে। মাঝে মধ্যেই ঘটে দুর্ঘটনা। বসে মাদকসেবীদের আড্ডাও। এমন পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়েছেন সেতুতে চলাচলকারী যানবাহন চালক ও দর্শনার্থীরা।

সড়ক বিভাগ জানায়, এই সেতুতে বাতি লাগানোর দায়িত্ব ইজারাদার প্রতিষ্ঠানের। কিন্তু, গত ৩০ জুন, ওই প্রতিষ্ঠানের টোল আদায়ের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে। এরপর আবেদনের প্রেক্ষিতে তিন দফায় মেয়াদ বাড়ানোর পর আবারও আদালতে মামলা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আদালত রায় না দেয়ায় নতুন বাতি না লাগালেও এখনো যানবাহন থেকে ঠিকই টোল আদায় করছে তারা। তবে, ইজারাদারকে বলে শিগগিরই সেতুতে নতুন বাতি লাগানোর ব্যবস্থা করার আশ্বাস দেন, সড়ক বিভাগের এ নির্বাহী প্রকৌশলী।

বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আগে জেলার গুরুত্বপূর্ণ এই সেতুতে দ্রুত নতুন বাতি লাগানোর দাবি জানিয়েছেন চলাচলকারীরা।

You might also like