ঝড়ে মাদারীপুরের শিবচরে অর্ধ শতাধিক দোকান, ৩টি স্কুলসহ ২ শতাধিক ঘর বাড়ি বিধ্বস্ত, আহত ১০

৬০

ঘূর্নিঝড়ে মাদারীপুরের শিবচরের বাশকান্দির শেখপুর বাজারের অর্ধ শতাধিক দোকান.৩টি স্কুল,২টি মসজিদসহ ২ শতাধিক ঘর বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। উপরে গেছে বিদ্যুৎ এর অসংখ্য খুটি, বন্ধ রয়েছে উপজেলাটির বিদ্যুৎ সংযোগ। আহত হয়েছে অন্তত ১০ জন। অধিকাংশ ঘরের চাল উড়ে যাওয়ায় অনেকেই খোলা আকাশের নীচে বসবাস করছেন। ক্ষতিগ্রস্থদের স্থানীয় আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে রবিবার সকালে ও বিকেলে জেলা প্রশাসক জেলা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ ত্রান বিতরন করা হয়েছে । প্রধানমন্ত্রী প্রশাসনকে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

সরেজমিনে জানা যায়, শনিবার গভীর রাতে জেলার শিবচর উপজেলার বাশকান্দি ইউনিয়নের উপর দিয়ে ঘূর্নিঝড়টি বয়ে যায়। এতে মুহুর্তেই শেখ বাজারের অর্ধশতাধিক দোকানের চাল উড়ে যায়, আধা পাকা ঘরগুলোর দেয়াল ভেঙ্গে পড়ে। বাঁশকান্দি ইউনিয়নের ছলেনামা, মৃজারচর ও সিপাইকান্দি বেশ কয়েকটি গ্রামের ২ শতাধিক ঘর বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। ঝড়ে শেখপুর বাজারের হাজেরা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয়, ২টি মসজিদ, ৩টি কিন্ডার গার্ডেনসহ মোট চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। অসংখ্য গাছ উপরে পড়ে ঘর বাড়িগুলোর ক্ষতি হয়েছে। বিদ্যুতের খুটিগুলো উপরে গেছে। ফলে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে শিবচর উপজেলা ।

অনেক স্থানে গাছের মগডালে ঘরের টিন ঝুলতে দেখা গেছে। ভিটে থেকে চাল উড়িয়ে নিয়ে গেছে বহু দুরে। ঘূর্নিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন। সারারাত বৃষ্টিতে ভিজে ওই সকল পরিবারের ছোট শিশু ও বৃদ্ধরা অনেকই অসুস্থ্য হয়ে পড়েছেন।

ক্ষতিগ্রস্তরা পড়েছেন খাবার সংকটে।  মাদারীপুর থেকে শিবচর উপজেলার বিদ্যুৎ সংযোগের প্রধান লাইনের প্রায় ৮টি খুটি ভেঙ্গে গেছে। এছাড়া বিভিন্ন গ্রাম ও বাজারে বিদু্ৎ সংযোগ দেয়া ২৫টি বিদ্যুতের খুটি ঝড়ে উপড়ে ফেলেছে।

এ কারনে শনিবার রাত থেকে শিবচরের ১৯টি ইউনিয়ন একটি পৌরসভায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পেড়েছে। তবে কবে নাগাদ বিদ্যুত সংযোগ স্বাভাবিক হবে তা নির্দিষ্ট করে কেউ বলতে পারছেন না। ভয়াবহ ঘূর্নিঝড়ে একটি বাজারের ৫০টি দোকান ও তিনটি গ্রামের ২শত ঘরবাড়ি লন্ড-ভন্ড হয়ে গেছে। এলাকায় এখনো বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুল ইসলাম, নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান সামসুদ্দিন খান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান, সহকারী কমিশনার(ভূমি)আল নোমান ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেছেন। ৫৬ অধিক ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে সকালেই স্থানীয় আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে নগদ টাকা, চাল, ডাল, তেল, লবন ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নগদ ১ হাজার টাকা , ৩০ কেজি চাল দেয়া হয়েছে ।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like