ট্রেন্ডে বাজিমাতের দোরগোড়ায় দেব-নুসরত-মিমি, দিল্লি দূর মুনমুনের

১৭৪

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে উদ্বেগে গোটা দেশ। মুহূর্তের মধ্যে পালটে যাচ্ছে ফলাফল। উত্তেজনার আঁচ পড়েছে টলিউড শিবিরেও। সিনেমাকে সরিয়ে রেখে আজ ভোটের ফলাফলের দিকে নজর বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিরও। কারণ, এখান থেকে পাঁচজন এবছর তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন। শতাব্দী রায়, মুনমুন সেন, মিমি চক্রবর্তী, নুসরত জাহান ও দেব।

যদিও লকেট চট্টোপাধ্যায় ও বাবুল সুপ্রিয়র মতো দুই হেভিওয়েট সেলেব্রিটি বিজেপির হয়ে লড়ছেন, কিন্তু টলিউডের বেশিরভাগই সেলেব্রিটিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভায় দেখা যায়। ফলে তৃণমূলের জেতা-হারা নিয়ে পারদ চড়ছে। ফলাফলের ট্রেন্ড বলছে, এক মুনমুন ছাড়া তৃণমূল কংগ্রেসের বাকি সেলেব্রিটি প্রার্থীরা এগিয়ে রয়েছেন। মুনমুনে সেনের ভাগ্যে আদৌ শিকে ছিঁড়বে কিনা, তা নিয়ে বিশেষজ্ঞদের মনেও চলছে দ্বন্দ্ব। তবে মুনমুন কিন্তু কার্যত জনগণের রায়কে মেনে নিয়েছেন। বলেছেন, জনগণ যদি এটাই চেয়ে থাকে, তাহলে তাই শিরোধার্য।

এবছর আসানসোল থেকে লড়ছেন অভিনেত্রী মুনমুন সেন। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বীও এক সেলেব্রিটি। বাবুল সুপ্রিয়। বিজেপির হয়ে আসানসোল কেন্দ্র থেকে লড়ছেন তিনি। ভোট প্রচারের সময়ই দেখা গিয়েছেন বাবুল এলাকায় যথেষ্ট অ্যাক্টিভ। তৃণমূলের পোস্টার ছেঁড়া থেকে শুরু করে, অনেক ক্ষেত্রেই প্রকাশ্যে তৃণমূল বিরোধিতা করতে দেখা গিয়েছে। মুনমুনকে এত সক্রিয়ভাবে চরমপন্থা নিতে দেখা যায়নি। কিন্তু তাঁর জনপ্রিয়তা বাবুল অপেক্ষা কম ছিল না। ফলে মনে করা হয়েছিল, লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি। কিন্তু বৃহস্পতিবার গণনা শুরু হওয়ার পর থেকে দেখা যাচ্ছে পিছিয়ে পড়ছে মুনমুন।

 

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like