দীর্ঘ ১৯ বছর পর শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার রায় ঘোষণা

৮৪

সাতক্ষীরায় শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা মামলার রায় ঘোষণা, ৫০ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা।

দীর্ঘ ১৯ বছর আগে সাতক্ষীরার কলারোয়ায় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। মামলায় সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিবসহ তিনজনকে ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং বাকি ৪৭ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়েছে আদালত। আজ বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সাতক্ষীরা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক হুমায়ুন কবীর আলোচিত এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

গেল ২৭ জানুয়ারি উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে ৩৪ আসামিকে কারাগারে পাঠানো হয়। মামলাটির ৩০ সাক্ষীর মধ্যে ২০ জনের সাক্ষ্য দেন। এ মামলার ৫৪ আসামির মধ্যে ৪ জন মারা গেছেন, ১৬ জন পলাতক রয়েছেন।

এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি এ মামলার ৫০ আসামির মধ্যে কাঠগড়ায় উপস্থিত তালা-কলারোয়া আসনের দুইবারের সাবেক সংসদ সদস্য বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ ৩৪ জনের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠান আদালত। ১৫ জন পলাতক রয়েছেন। আর টাইগার খোকন নামের একজন আগে থেকে অন্য মামলায় জেলহাজতে আটক রয়েছেন।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সাতক্ষীরায় একজন মুক্তিযোদ্ধার ধর্ষিতা স্ত্রীকে দেখে মাগুরায় ফিরে যাচ্ছিলেন তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তৎকালীন সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি মো. হাবিবুল ইসলাম হাবিবের পরামর্শে ও নির্দেশক্রমে শেখ হাসিনাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে আসামিরা বেআইনি জনতাবদ্ধ হয়ে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র, হাত বোমা, রামদা, লোহার রড, বাঁশের লাঠি, শাবল ইত্যাদি মারাত্মক অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে গুরুতর জখম ও খুন করার প্রস্তুতি নিয়ে সাতক্ষীরা জ-০৪-০০২৯ বাসটি দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। কলারোয়ায় পৌঁছালে শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার ঘটনা ঘটে। এতে তিনি প্রাণে রক্ষা পেলেও তার সফরসঙ্গী জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবুর রহমান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগনেতা ফাতেমা জামান সাথী, আব্দুল মতিন, জোবায়দুল হক রাসেল ও শহীদুল হক জীবনসহ অনেকেই আহত হন। একইসময় সাতক্ষীরার বেশ কয়েকজন সাংবাদিকও হামলার শিকার হন।