নতুন অস্ত্রে শান দিয়ে ম্যাঞ্চেস্টারে চালকের আসনে পাকিস্তান

পাক ওপেনার হিসেবে ইংল্যান্ডে শেষ টেস্ট সেঞ্চুরি এসেছিল সৈয়দ আনওয়ারের ব্যাট থেকে। ১৯৯৬ সালের পরে এখনও পর্যন্ত সেই কীর্তি স্পর্শ করতে পারেননি কোনও পাক ওপেনার। বৃহস্পতিবার আরও এক বাঁ-হাতি ওপেনার সেই কীর্তির ছুঁয়ে ফেলেন। তিনি শান মাসুদ। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিন সবাই যখন বাবর আজ়মের শৈল্পিক ব্যাটিং দেখার অপেক্ষায়। সেই মঞ্চে লড়াকু ১৫৬ রানের ইনিংস উপহার দেন শান।

শেষ তিনটি টেস্ট ইনিংসেই সেঞ্চুরি পেলেন ৩০ বছর বয়সি ওপেনার শান। প্রাক্তন পাক ওপেনার মুদাসসর নজ়রের পরে কোনও ওপেনার হিসেবে এই কীর্তির মালিক শান। শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ তিন ইনিংসে সেঞ্চুরি আসে তাঁর ব্যাট থেকে।

১৭৬ রানে পাঁচ উইকেট হারানোর পরে ১০৫ রানের জুটি গড়েন শান ও শাদাব খান। দ্বিতীয় নতুন বলের বিরুদ্ধে প্রতিআক্রমণ করেন শাদাব। ইনিংস গড়ে তোলার দায়িত্ব নেন শান।
ওপেনার হিসেবে কতটা ঝুঁকিহীন ক্রিকেট খেলা যায়, তার আদর্শ উদাহরণ দিয়ে গেলেন। সেঞ্চুরি করতে নেন ২৫১ বল। পরের পঞ্চাশ রান করেন ৬০ বলে। শানের ধৈর্যে এই পরিবর্তন ঘটান স্বয়ং ইউনিস খান। বর্তমানে পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচ বলেছেন, ‘‘বলেছিলাম, শুধু অফস্টাম্পের বল ছেড়ে যা। ও যে ফল পেয়েছে, তাতেই আমি খুশি।’’

৩২৬ রানে শেষ হয় পাকিস্তানের প্রথম ইনিংস। জবাবে ইংল্যান্ডের প্রথম চার ব্যাটসম্যানই ফিরে গিয়েছেন প্যাভিলিয়নে। রোরি বার্নস, ডম সিবলি, জো রুট ও বেন স্টোকস থিতু হওয়ার আগেই হারিয়েছেন নিজেদের উইকেট। দুই উইকেট মিডিয়াম পেসার মহম্মদ আব্বাসের। একটি করে উইকেট শাহিন শাহ আফ্রিদি ও লেগস্পিনার ইয়াসির শাহের। সূত্র: আনন্দবাজার