নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে শিশুকন্যা চুরি

৭২

নাটোরের গুরুদাসপুরে তাইবা নামে দুই মাস বয়সী একটি শিশুকন্যা চুরির ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এই চুরির ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার পর থেকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসা অন্যান্য রোগীর স্বজনদের মাঝে আতংক বিরাজ করছে। চুরি যাওয়া শিশু তাইবা উপজেলার মশিন্দা মাঝপাড়া গ্রামের তফিজ উদ্দিন ও সীমা খাতুন দম্পতির একমাত্র কন্যা।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোজাহিদুল ইসলাম জানান, বুধবার সকালে সীমা খাতুন ঠান্ডাজনিত সমস্যার কারণে তার দুই মাসের শিশুকন্যা তাইবাকে সাথে নিয়ে গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্তার দেখানোর জন্য আসেন।

এ সময় বহির্বিভাগে লাইনে অনেক ভিড় থাকায় পাশে থাকা অজ্ঞাত বোরকা পাড়া এক মহিলা সীমা খাতুনকে আপা বলে সম্মোধন করে বাচ্চাটিকে তার কোলে দিয়ে ডাক্তার দেখাতে বলে। এ সময় সীমা সরল বিশ্বাসে তার শিশুকন্যাকে ঐ মহিলার কাছে দিয়ে ডাক্তার দেখানোর জন্য যান। কিছু সময় পর সিমা খাতুন ফিরে এসে দেখেন অজ্ঞাত মহিলাসহ শিশুকন্যা তাইবা সেখানে নেই।

পরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিভিন্ন স্থানে হন্তদন্ত হয়ে খোঁজাখুজি শুরু করেন তিনি। খোঁজাখুঁজি করে না পাওয়া গেলে বিষিয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশকে অবহিত করা হয়। ঘটনার পর পুলিশ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে এবং বিভিন্ন স্থানে চেকপোষ্টসহ অভিযানে নেমে শিশুকন্যাকে উদ্ধারের জন্য চেষ্টা শুরু করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় এখনো কোন মামলা দায়ের হয়নি।

গুরুদাসপুর উপজেলা কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোজাহিদুল ইসলাম জানান, ঘটনার পরপরই পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। তাদেরকে হাসপাতালের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সরবরাহ করা হয়েছে। শিশুটি উদ্ধারে আইনশৃঙ্গলাবাহিনিকে সবরকম সহায়তা দেয়া হচ্ছে। দ্রুত সময়ের মধ্যেই শিশু তাইবাকে উদ্ধার করা সম্ভব হবে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

You might also like