পাঁচ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়লো

বিভিন্ন অভিযোগে দায়ের করা পৃথক পাঁচ মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ এক বছর বাড়িয়েছেন হাইকোর্ট।

জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি চেয়ে খালেদা জিয়ার পৃথক আবেদনের শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের পৃথক দু’টি বেঞ্চ এই আদেশ দেন। পাঁচ মামলার মধ্যে মানহানির অভিযোগে চারটি মামলা। এই চার মামলায় আজ এক বছরের জন্য খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়ানো হয়।

বাসে আগুন দিয়ে মানুষ হত্যার অভিযোগে কুমিল্লায় দায়ের করা মামলায় গতকাল সোমবার খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ এক বছরের জন্য বাড়ানো হয়।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী কায়সার কামাল। সঙ্গে ছিলেন এডভোকেট এ এইচ এম কামরুজ্জামান মামুন, শামীমা সুলতানা দীপ্তি ও রোকনুজ্জামান সুজা।

আইনজীবীরা জানান, মানহানির অভিযোগে ঢাকায় তিনটি ও নড়াইলে করা একটি মামলায় বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলী সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ এক বছর বাড়িয়ে আদেশ দেন।

অন্যদিকে, নাশকতা ও হত্যার অভিযোগে কুমিল্লায় এক মামলায় বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত অপর একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ এক বছর বাড়িয়ে আদেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বক্তৃতাকে কেন্দ্র করে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগে ঢাকায় তিনটি ও নড়াইলে একটি মামলা হয়। পৃথক মামলায় জামিন চেয়ে তিনি ২০১৮ সালে হাইকোর্টে আবেদন করেন। এর প্রাথমিক শুনানি নিয়ে একই বছর হাইকোর্ট রুল দিয়ে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। আর বাসে আগুন দিয়ে মানুষ হত্যার অভিযোগে ২০১৫ সালে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানায় মামলা হয়। এই মামলায় ২০১৯ সালে হাইকোর্ট থেকে খালেদা জিয়া জামিন পান। পৃথক পাঁচ মামলায় জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন খালেদা জিয়া।

সূত্র: বাসস