পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীর শরীরে আগুন দিয়েছে পাষণ্ড স্বামী

৪৬

পারিবারিক কলহের জেরে রাঙ্গুনিয়ায় পাষণ্ড স্বামী পেট্রোল ঢেলে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে স্ত্রীর শরীরের নিম্নাঙ্গ। এরপর শাশুড়িকে ফোন করে বলেছে ‘তোর মেয়েকে পেট্রোল দিয়ে জ্বালিয়ে দিলাম।

’গতরাতে এই পৈশাচিক ঘটনা ঘটেছে রাঙ্গুনিয়ার কোদালা ইউনিয়নের সন্দ্বীপ পাড়া এলাকায়। আগুনে দগ্ধ অবস্থায় ইয়াছমিন আক্তার (৩০) নামের ওই নারীকে নিয়ে আসা হয় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। তার স্বামী মো. রাসেলকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  এদিকে ঘটনার পর রাঙ্গুনিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী নারীর বাবা হারুনুর রশিদ।

চমেক হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের প্রধান ডা. রফিক উদ্দিন আহমেদ বলেন, রোগীর শরীরে ৪০ শতাংশ বার্ন রয়েছে। অবস্থাও আশঙ্কাজনক। ঢাকায় নিয়ে যেতে রোগীর স্বজনদের বলেছি।

আজ সকালে রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মাহাবুব মিল্কি জানান, ওই গৃহবধূর স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে দোষ স্বীকার করেছে।

সকালে চিকিৎসাধীন ইয়াছমিন আকতার বলেন, কয়েকদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল। ঝগড়ার এক পর্যায়ে আমি ছেলেকে নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যেতে চাই। কিন্তু স্বামীর বাধায় যেতে পারিনি। রাতে আমার বাচ্চা ঘুমালে সে এসে আমাকে মারধর করে। এসময় আমার গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। আমার মাকে ফোন দিয়ে বলে ‘তোর মেয়েকে জ্বালিয়ে দিলাম। পারলে পুলিশ নিয়ে আয়। আমার কি করতে পারস দেখি। ’

রাসেল সন্দ্বীপ পাড়ার মৃত মো. শফিকুল ইসলামের ছেলে। তাদের সংসারে ৪ বছরের ছেলে রয়েছে। ইয়াছমিন আকতার উপজেলার চন্দ্রঘোনা কদমতলী ইউনিয়নের নবগ্রাম এলাকার হারুনুর রশিদের মেয়ে। ৮ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়।

নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি