পার্টি মানেই জবরজং সাজ এমন ধারণা এখন সেকেলে

লকডাউন উঠে যাওয়ায় অনেকটাই স্বাভাবিক হয়েছে জনজীবন। জমে থাকা প্রয়োজনীয় কাজ, শপিং, ঘুরে বেড়ানো ছাড়াও ঘরোয়া বিয়ে, গেট টুগেদার, পার্টিসহ বিভিন্ন ছোটখাটো অনুষ্ঠানের দাওয়াত পড়তে শুরু করছে। পার্টি মানেই জবরজং সাজ এমন ধারণা এখন সেকেলে।

এই রোদ-গরম, তো চোখ ফেরাতেই মেঘে মেঘে গোমড়া আকাশের এ সময়টাতে হালকা সাজেই ফুটে উঠবে সৌন্দর্য ও স্নিগ্ধতা।

তাই হালকা পোশাকের সঙ্গে হালকা সাজ-এমনটাই থাকুক এ সময়ের পার্টিলুক।

পোশাক নির্বাচনে লক্ষ রাখুন তা যেন জবরজং না হয়। ভারী কাজের পোশাক বৃষ্টিবাদলের সময়টাতে আপনাকে শুধু অস্বস্তিতেই রাখবে না ভিজে গেলে শুকাতেও সময় নেবে।

তাই লক্ষ রাখুন এ সময় পোশাকের নকশা এবং ফেব্রিক দুটিই যেন হালকা পাতলা হয়। তাই বলে একেবারেই যে সাদামাটা পোশাক পরতে হবে তা কিন্তু নয়।

বরং পোশাকে উজ্জ্বল রং আর হালকা নকশা ও প্রিন্টের মাধ্যমে নিয়ে আসুন বৈচিত্র্য।

 

ফেব্রিক নির্বাচন করুন সুতি কিংবা জর্জেট। পার্টি লুক আনতে চাইলে অ্যান্ডি সিল্কের পোশাক পরা যেতে পারে।

রাতের পার্টিতে একটু ভারী মেকআপ না হলেই নয়। সেক্ষেত্রে আপনি পোশাকটা উজ্জ্বল রঙের পরতে পারেন।

এখন চুল খুব বেশি টেনে না বাঁধাই ভালো। এতে বৃষ্টিতে ভিজে গেলে সহজে শুকাতে চাইবে না।

আবার চুল খোলা রাখাও আরামদায়ক হবে না। চুল লম্বা কিংবা মাঝারি হলে হাতখোঁপা করে কানের কাছে ছোট কোনো বর্ষার ফুল গুঁজে দিতে পারেন।

ভিন্নতা আনতে ফেঞ্চ বেণি, লুজ বেণিও করা যেতে পারে। ফন্ট টুইস্ট করে পেছনে এলোখোঁপা কিংবা বেণিও বানাতে পারেন।

বর্ষাকালে খুব ভারী জুয়েলারি পরতে যাবেন না।

হালকা-পাতলা গহনা বেছে নিন। তবে তা পোশাকের সঙ্গে মানানসই হতে হবে।