পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা, আসামি চার হাজার

রাজধানীর পল্টনে বায়তুল মোকাররম মসজিদ ও এর আশপাশের এলাকায় শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) জুমার নামাজের পর পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে।শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর পল্টন, রমনা ও চকবাজার থানায় পৃথক এ তিনটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলাগুলোর বাদী পুলিশ।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে পল্টন থানার অফিসার ইনচার্জ সালাউদ্দিন মিয়া বলেন, খেলাফত আন্দোলনের আমির জাফর উল্লাহ খানসহ ১১ জনের নাম মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া দুই থেকে আড়াই হাজার বিক্ষোভকারীকে অজ্ঞাত হিসেবে আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬ জনকে গ্রেফতার করে এ মামলায় রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

মামলার এজাহারে কুমিল্লার ঘটনার জেরে পল্টন থানা এলাকায় নাশকতা, ভাঙচুর, রাষ্ট্রীয় সম্পদ বিনষ্ট, সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। অভিযুক্ত করা হয়েছে চার হাজার ৪০ জনকে। তিন থানার এসব মামলায় এখন পর্যন্ত ২১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি বলেন, পল্টন থানায় অজ্ঞাতনামা ২৫০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। মামলায় এখন পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রমনা থানায় অজ্ঞাতনামা ১৫০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। মামলায় এখন পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। চকবাজার থানায় ৪০ জনের বিরুদ্ধে করা মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন পাঁচজন।

শুক্রবার পবিত্র জুমার নামাজের পর রাজধানীর জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম থেকে কয়েকশ মুসল্লি মিছিল বের করেন। মিছিলটি পল্টন হয়ে নাইটিঙ্গেল মোড়ে গেলে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। এসময় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশকে লক্ষ্য করে বিক্ষোভকারীরা ইটপাটকেল ছোড়েন। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে। দুই পক্ষের মধ্যে প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা ধরে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় পুলিশের পাঁচ সদস্যসহ নয়জন আহত হন। সংঘর্ষের সময় ঘটনাস্থল থেকে ১৭ জনকে আটক করে পুলিশ।