প্রেক্ষাগৃহের বিকল্প খুঁজছে দেশের সিনেমা

সময়টা আরও রঙিন হতে পারতো। আলোচিত বেশ কিছু ছবি দেশের সিনেমা হলগুলোতে মুক্তির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। কিন্তু দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ থমকে দেয় চলতি বছরের গেল মার্চে মুক্তির মিছিলে থাকা ছবিগুলোর ব্যাপারে।

গত মার্চ মাসে মুক্তির কথা ছিল শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু, ঊনপঞ্চাশ বাতাস, জ্বীন, বিশ্বসুন্দরী, নীল মুকুটসহ বেশ কিছু ছবি। একই সঙ্গে মুক্তির জন্য প্রস্তুত হচ্ছিল পবিত্র ঈদুল আজহার ছবি। কিন্তু করোনার কারণে সময়টা আর রঙিন হতে পারেনি।

১৮ মার্চ থেকে চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতি, প্রদর্শক সমিতিসহ সংশ্লিষ্ট সমিতিগুলো প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। ফলে থমকে যায় মুক্তির জন্য প্রস্তুত থাকা ছবিগুলোর মুক্তির পথ। করোনা মহামারির কারণে প্রায় চার মাস বন্ধ দেশের প্রেক্ষাগৃহগুলো।

নতুন সিনেমা মুক্তি দেয়া নিয়ে দোটানায় আছেন প্রযোজক ও পরিচালকেরা। সবকিছু স্বাভাবিক হলেও দর্শক সিনেমা দেখতে প্রেক্ষাগৃহে যাবেন, এর নিশ্চয়তা নেই। তাই ছবিগুলো মুক্তির জন্য বিকল্প মাধ্যম হিসেবে অনলাইন প্ল্যাটফর্মের কথা ভাবছেন অনেকেই।

এই পরিস্থিতিতে প্রেক্ষাগৃহে ছবি মুক্তির অনিশ্চয়তার কারণে বিকল্প মাধ্যমে ঊনপঞ্চাশ বাতাস মুক্তির কথা ভাবছেন নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বল। হলের বিকল্প হিসেবে ওটিটি মাধ্যমকে মাথায় রেখেই এই ব্যাপারে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

সিয়াম আহমেদ ও পরীমণি অভিনীত এবং নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরীর ছবি ‘বিশ্বসুন্দরী’র মুক্তি প্রসঙ্গে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট আরিফ রহমান জানান, অনলাইনই হতে পারে ছবিটি মুক্তির বিকল্প মাধ্যম।

এদিকে, জ্বীন ছবির প্রযোজক আবদুল আজীজ জানান, পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে এই মুহূর্তে ছবি মুক্তি নিয়ে কিছু ভাবছেন না। তবে সাদা-কালো সময়টা যে বিকল্প মাধ্যমে রঙিন হয়ে উঠতে পারে সেটাই যেন স্পষ্ট হয়ে উঠছে দিন-দিন।

নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি