ফেব্রুয়ারি নাগাদ করোনার টিকা পাওয়ার আশাবাদ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

৮০

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আগামী বছরের জানুয়ারির শেষ সপ্তাহ কিংবা ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে দেশে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধের টিকা পাওয়ার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। তিনি জানান, তিন কোটি ডোজ টিকা পাওয়ার জন্য ইতোমধ্যে সিরাম ইন্সটিটিউটের সাথে চুক্তি হয়েছে। ওয়ার্ক অর্ডারও প্রদান করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠনটিকে ব্যাংক গ্যারান্টি প্রদানের অনুরোধ করা হয়েছে; যার বিপরীতে সরকার পেমেন্ট দিতে পারে।

আজ (২৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বাংলাদশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশন (বিপিএমসিএ)’র উদ্যোগে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা ও কোভিড-১৯ এর নতুন স্টেইন (পরিবর্তিত রূপ) ছড়ানো নিয়ন্ত্রণকল্পে ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, করোনার টিকা অবশ্যই বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন থাকতে হবে। সরকার এবং বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানসমূহ টিকাদানের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করছে। তিনি বলেন, প্রথমদিকে নানা অপ্রতুলতা, অনভিজ্ঞতা, ল্যাবের স্বল্পতা সত্ত্বেও সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় করোনার প্রথম ঢেউ সফলতার সাথে মোকাবেলা করা সম্ভব হয়েছে। এখন প্রস্তুতি, ইকুইপমেন্টস ও অভিজ্ঞতার আলোকে দ্বিতীয় ঢেউও আরও ভালোভাবে মোকাবেলা করা সম্ভব হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ সহনীয় পর্যায়ে উন্নীত করার Bloomberg Resilience Ranking এ দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র বাংলাদেশ বিশ্বের মধ্যে ২০তম স্থান পেয়েছে।

সংগঠনের সভাপতি এম এ মুবিন খানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তৃতা করেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর, অধ্যাপিকা ড. হোসনে আরা বেগম, ডা. মো. মঈনুল আহসান, ড. মুস্তাফিজুর রহমান, অধ্যাপক ডা. আফজাল মিঞা, সৈয়দ মো. মোর্শেদ হোসেন প্রমুখ।

You might also like