বগুড়ায় ভাইকে মারধরের প্রতিবাদ করায় আরেক ভাই খুন

১৯৬

বগুড়ায় ছোট ভাইকে মারধরের প্রতিবাদ করায় যুবলীগ নেতার ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন শাহেদ(৩৫) নামের একজন কাঠ ব্যবসায়ী। নিহত শাহেদ বগুড়া সদরের পুর্ব আশাকোলার তোজাম্মেল হোসেন এর ছেলে।

আজ (শুক্রবার) দুপুরে বগুড়া সদরের নুনগোলা ঈদগাহ মাঠ এলাকায় খুনের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা রুবেল হোসাইনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।গ্রেফতারকৃত রুবেল নিশিন্দারা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি।

জানা গেছে, শুক্রবার দুপুরে নামাযের আগে স্থানীয় ন্যাংড়ার বাজারে সেলুনে চুল কাটার সিরিয়াল দেয়া নিয়ে দুইজনের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। একপর্যায়ে এদের মধ্যে এক যুবক যুবলীগ নেতা রুবেলকে ফোন করে ডেকে আনে।

রুবেল ন্যাংড়ার বাজারে পৌছে সেলুনে কর্মরতদের উপর চড়াও হয়।এসময় নিহত শাহেদের ছোট ভাই জাফরুল রুবেলকে বাঁধা দেয়।এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে রুবেল জাফরুলকে মারধর করে। জাফরুল বাড়িতে গিয়ে বড় ভাই শাহেদকে ঘটনাটি জানায়।

শাহেদ ঘটনা শুনে ন্যাংড়ার বাজারের দিকে আসতে থাকে।পথি মধ্যে নুনগোলা ঈদগাহ মাঠের কাছে রুবেল ও তার সহযোগীদের সাথে শাহেদের দেখা হয় এসময় ছোটভাই জাফরুলকে মারধরের কারন জানতে চায় শাহেদ। এনিয়ে দুজনের মধ্যে তর্ক বিতর্ক শুরু হলে রুবেল ও তার সহযোগীরা শাহেদের বুকে ও পিঠে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

শাহেদকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়।সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা তিনটায় শাহেদ মারা যান।

ঘটনার পর পরই পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে যুবলীগ নেতা রুবেলকে গ্রেফতার করে।

বগুড়া সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মঞ্জুরুল হক ভুঞা বলেন, তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে শাহেদকে খুন করা হয়। ঘটনার পর পরই প্রধান আসামী রুবেলকে গ্রেফতার করা হয় হয়েছে। অন্যান্যদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অনলাইন নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি

You might also like