বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের এক অনন্য দিন ৭ই মার্চ

২৬৫

ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ। বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের এক অনন্য দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে রেসকোর্স ময়দান বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের বিশাল জনসভায় দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সেদিন তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে বাঙালি জাতি মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। দীর্ঘ নয়মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর বাংলাদেশ নামের স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রটি অর্জন করে।

সেদিন লাখ লাখ মুক্তিকামী জনতার ঢল নামে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। উপস্থিত জনতার সামনে তেজোদীপ্ত কণ্ঠে বঙ্গবন্ধু ঘোষণা করেন, এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।
বঙ্গবন্ধুর জ্বালাময়ী সে ভাষণে বাঙালি জাতি পেয়ে যায় স্বাধীনতার চূড়ান্ত দিক-নির্দেশনা। এরপর পর-ই মুক্তির সংগ্রামের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন বাঙালি জাতি।

ইউনেস্কো বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণকে বিশ্ব ঐতিহ্যের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এর ফলে, বাঙালি জাতির গৌরব আর সম্মান আন্তর্জাতিকভাবে আরেকবার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

তাঁর এ ভাষণ আজো নতুুন প্রজন্মকে স্বপ্ন দেখায় অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে। আগামির বাংলাদেশ বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণ তরুণ প্রজন্মকে আরো বেশি উৎসাহ-উদ্দীপনা যোগাবে।
৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয় ছিনিয়ে আনে বাঙালি জাতি। এই বিজয়ের মধ্যদিয়ে বিশ্ব মানচিত্রে জন্ম নেয় স্বাধীন সার্বভৌম নামের আজকের বাংলাদেশ।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like