বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবসের রাষ্ট্রপতির বাণী

আগামীকাল  (১৫ জুলাই) বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস উপলক্ষে বাণী প্রদান করেছেন, রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ।

রাষ্ট্রপতি তার দেওয়া বাণীতে বলেন “দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের গুরুত্ব তুলে ধরার লক্ষ্যে বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস উদ্‌যাপন করছে জেনে আমি আনন্দিত। ইউনেস্কো-ইউনিভোক কর্তৃক এ বছর বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবসের প্রতিপাদ্য ‘Skills for a resilient youth’ নির্ধারণ করা হয়েছে, যা বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে খুবই তাৎপর্যপূর্ণ।

বাংলাদেশের জনগোষ্ঠীর একটি বৃহৎ অংশ যুবসমাজ। এ যুবসমাজকে দক্ষ ও যোগ্য করে গড়ে তুলতে হলে শিক্ষার পাশাপাশি প্রশিক্ষণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমান সরকার দক্ষতা উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। ফলশ্রুতিতে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের সুযোগ যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে; তেমনি বৃদ্ধি পেয়েছে প্রশিক্ষণার্থীর সংখ্যা।

সরকারের পাশাপাশি এনজিও এবং বেসরকারি পর্যায়ে ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মানেন স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব হবে।

দক্ষতার মানোন্নয়, অভিন্ন কারিকুলাম প্রণয়ন ও সনদায়ন, দক্ষতার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জন এবং পূর্ব অভিজ্ঞতার স্বীকৃতি প্রদান বিষয়ে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কাজ করছে। আমি আশা করি, জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ শিল্প দক্ষতা পরিষদ এবং প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পারস্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে দক্ষতা উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। ওয়ার্ল্ড স্কিলস্ ইন্টারন্যাশনাল এবং ওয়ার্ল্ড স্কিলস্ এশিয়ার মত আন্তর্জাতিক এবং আঞ্চলিক সংস্থার সদস্য হয়ে দক্ষতা প্রতিযোগিতায় জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অংশগ্রহণ একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ।

রাষ্ট্রপতি বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস ২০২০ উদ্‌যাপনের সার্বিক সফলতা কামনা করেন।