ভারতীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়ের জীবন গাঁথা

৩৬

মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়ের  জন্ম কলকাতায়। তার বাবা প্রাণতোশ চট্টোপাধ্যায় ছিলেন সেনাবাহিনী কর্মকর্তা। উপমহাদেশের কিংবদন্তি সঙ্গীতজ্ঞ হেমন্ত কুমার মুখোপাধ্যায়ের পুত্র বধু তিনি। বিয়ের পর বলিউড চলচ্চিত্রে অভিনয় করে যে খ্যাতির শীর্ষে উঠা যায় ভারতীয় চলচ্চিত্র ইন্ড্রাস্ট্রিতে সেটা প্রথম প্রমান করেছিলেন মৌসুমী।

১৯৬৭ তরুণ মজুমদার পরিচালিত বাংলা সিনেমা “বালিকা বধু” অভিনয়ের মাধ্যমে তার চলচ্চিত্র অভিষেক ঘটে, তখন তার বয়স ছিল মাত্র ১৫ বছর। নায়িকা হিসেবে ঘটে হিন্দি সিনেমায় তাঁর অভিষেক ঘটে ১৯৭২ সালে শক্তি সামন্ত পরিচালিত “অনুরাগ” চলচ্চিত্রের মাধ্যমে।

এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করে ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পান মৌসুমী। তারপর শুধুই এগিয়ে যাওয়া। শশী কাপুরের বিপরীতে “নাইনা”, বিনোদ মেহ্‌রার সাথে “আস পার” এর মত অনেক সুপারহিট সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি।

অভিনয় জীবনে আজীবন সন্মাননাসহ জিতেছেন অসংখ্য পুরস্কার । বাংলা হিন্দি ছারাও মারাঠি ভাষার সিনেমায়ও অভিনয় করেছেন মৌসুমি। ১৯৮৫ সাল পর থেকে সিনেমায় অনিয়মিত হতে থাকেন তিনি। তবে প্রধান নায়িকার ভূমিকায় অভিনয়না করলেও জাপানিজ ওয়াইফ, গয়নার বাক্সের মত দর্শক নন্দিত সিনেমায় হাজির হয়েছেন মিষ্টি মুখের মৌসুমি।