ভারত থেকে ভ্যাকসিন পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী

৮৮

করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে সিরাম কোম্পানি ও পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় ও বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালের আলোচনা হয়েছে, তাই ভ্যাকসিন পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদ প্রকাশ করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

আজ সোমবার (০৪ জানুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে ভ্যাকসিন বিষয়ে বৈঠক শেষে একথা জানান তিনি। গভমেন্ট টু গভমেন্ট চুক্তি হবার কারণে ভারতের থেকে ভ্যাকসিন পেতে বাধা নেই বলেও জানিয়েছেন স্বাস্থ্যসচিব।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা রফতানিতে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটের ওপর নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। কয়েক মাস এ নিষেধাজ্ঞা অব্যাহত থাকবে বলেও জানানো হয়। এমন পরিস্থিতিতে ভারত থেকে ভ্যাকসিন কিনতে অর্থ পরিশোধ করছে বাংলাদেশ। দু-একদিনের মধ্যেই ১২০ মিলিয়ন ডলার বা এক হাজার ১০০ কোটি টাকা দেওয়া হবে।

এদিকে, স্বাস্থ্যসচিব জানিয়েছেন, বাংলাদেশ ভারতের মাঝে করোনার ভ্যাকসিন বিষয়ে চুক্তি হয়েছে তাতে বাংলাদেশের ভ্যাকসিন পেতে বাধা নেই। ভ্যাকসিনের রপ্তানি বিষয়ে ভারতে নিষেধাজ্ঞা বাংলাদেশের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। সচিব আরো জানিয়েছেন, ভ্যাকসিন টার্গেটেড সময়েই পাওয়া যাবে।

এর আগে রোববার (৩ জানুয়ারি) মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে (এপি) দেওয়া সাক্ষাৎকারে সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী আদর পুনাওয়ালা বলেন, রোববার ভারতের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা তাদের টিকার জরুরি অনুমোদন দিয়েছে। তবে শর্ত হচ্ছে ভারতের সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সেরাম ইনস্টিটিউট টিকা রফতানি করা যাবে না।

You might also like