মুহিবুল্লাহ হত্যার মিশনে ৫ অস্ত্রধারী, ২ মিনিটেই শেষ ‘কিলিং মিশন’

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় কিলিং স্কোয়াডে ছিল ৫ অস্ত্রধারী। তারা মাত্র ২ মিনিটেই মুহিবুল্লাহর হত্যার মিশন শেষ করে পালিয়ে যান। এ হত্যাকাণ্ডে সর্বমোট ১৯ জন কাজ করেছে বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডটি পূর্ব পরিকল্পিত ছিল।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে এপিবিএন কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি নাইমুল হক।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে অংশ নেওয়া ১৯ সন্ত্রাসীর মধ্যে অস্ত্রধারী ছিল ৫ জন। বাকিরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের দায়িত্বে ছিল।

নাইমুল হক জানান, শুক্রবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুতুপালংয়ের লম্বাশিয়া লোহার ব্রিজ এলাকা থেকে একটি ওয়ান শুটারগানসহ কিলিং মিশনে অংশ নেওয়া আজিজুল হককে গ্রেফতার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রশিদ প্রকাশ মুর্শিদ আমিন, মো. আনাছ ও নুর মোহাম্মদকে গ্রেফতার করা হয়।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে উখিয়ার শরণার্থী শিবিরে নিজ কার্যালয়ে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের হাতে খুন হন আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহ।

You might also like