যশোরের শার্শায় কুপিয়ে সিএন্ডএফ কর্মচারিকে হত্যা :আটক ০৬

আমেরিকা যাওয়া হলো না সিএন্ডএফ কর্মচারী জহিদ হোসেনের। পাওনা টাকা চাওয়ায় প্রতিপক্ষের হাতে নির্মম ভাবে খুন হয়েছে জহিদ।

জাহিদ হোসেন বেনাপোল পোড়াবাড়ি নারানপুর গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে। সে বেনাপোল সিএন্ডএফ সেজুতি এন্টার প্রাইজের ম্যানেজার ছিল।

বুধবার দিবাগত রাতে শার্শা নাভারন ইসলামপুর গ্রামের একটি বাড়ীতে টাকা চাইতে গেলে তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয় বলে জানান পুলিশ ও স্থানীয়রা। এঘটনায় অভিযুক্ত একই পরিবারের ৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্বজনেরা জানান, আমেরিকা যাওয়ার স্বপ্নে দেখিয়ে জাহিদ হোসেনের কাছ থেকে ৩ মাস আগে ৬ লাখ টাকা নেয় আদম বেপারি নাভারন ইসলামপুর গ্রামের ফিরোজা বেগম ও তার স্বামী নাভারন কাজিরবেড় গ্রামের গোলাম রসুলের ছেলে শরিফ হোসেন ও ভাই খালিদ। বুধবার জাহিদের কাছে চাওয়া হয় আরো দুই লাখ টাকা চাইলে, জাহিদ রাতে টাকা নিয়ে ফিরোজার বাড়ীতে যায়। লেনদেনের এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির হয়। এবং এক পর্যায়ে তাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে। পরে লাশ বস্তাবন্দি করে পাশের কলাকাগানো ফেলে দেয়।

পুলিশ খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে মরদেহ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।

শার্শা থানার ওসি মসিউর রহমান বলেন, কুপিয়ে হত্যা করা হয় তাকে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্যে যশোর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

আটক করা হয়েছে খালিদ আলামিন সুমি, ফিরোজা,বিউটি ও রহিমা খাতুন নামে ৬জনকে। অন্যান্যদের আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি