রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষের ঘটনায় ১২ জন গ্রেফতার

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনায় জনমনে ব্যাপক আতঙ্ক বিরাজ করছে। সপ্তাহজুড়ে উখিয়ার কুতুপালং ১নং ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে রোহিঙ্গাদের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও সংঘাত চলে আসছে। সংঘর্ষে এ পর্যন্ত এক রোহিঙ্গাসহ ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে এক সাথে ৪ জনের মৃত্যুর ঘটনায় ওই ক্যাম্পে উত্তেজনা তীব্র আকার ধারণ করে।

এর জেরে বুধবার সকাল থেকে সারাদিন দু’পক্ষের মধ্যে প্রকাশ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এসময় নতুন করে উভয় পক্ষের কয়েক শতাধিক রোহিঙ্গা আহত হয়। এ ঘটনায় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা গতকাল রাত পর্যন্ত ৫০টিরও অধিক বসতবাড়ি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে।

রোহিঙ্গারা জানায়, ক্যাম্পের অভ্যন্তরে ইয়াবা ব্যবসা, দোকান থেকে চাঁদাবাজি ও এলাকাভিত্তিক আধিপত্য বিস্তার নিয়ে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী মুন্না গ্রুপ ও আনাছ গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ চলছে।

এদিকে ওই ক্যাম্পে সকাল থেকে উত্তেজনা বাড়তে থাকলে দায়িত্বরত এপিবিএন সদস্য, পুলিশ, আনসার ও সেনাবাহিনী টহল জোরদার করে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১২ জন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে আটক করে পুলিশ। বিকেলে, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মো: আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর মিয়ানামারের রাখাইনে সেদেশের সেনাবাহিনীর অব্যাহত বর্বর নির্যাতনের মুখে প্রাণভয়ে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় ১১ লাখেরও বেশী রোহিঙ্গা। আশ্রয় নেয়ার পর পরিস্থিতি শান্ত থাকলেও ক্রমাগতভাবে তাদের অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি

You might also like