লবণের সংকট সৃষ্টি করলে শাস্তি: চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক

১২৭

বাজারে লবণের স্বল্পতা সম্পর্কে ছড়ানো গুজবে কান না দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. ইলিয়াস হোসেন। আজ সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সভায় তিনি এ পরামর্শ দেন। জেলা প্রশাসক বলেন, লবণের দাম বাড়ার গুজব ছড়িয়ে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করলে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে।

ইতিমধ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে নেমেছে। গুজব রটনাকারীদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। লবণের কোনো স্বল্পতা নেই। বর্তমানে দেশে যে পরিমাণে লবণ মজুদ রয়েছে তা চাহিদার চেয়েও অনেক বেশি। অসাধু ব্যবসায়ীদের একটি সিন্ডিকেট বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে ফায়দা লুটার চেষ্টা করছে। বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। জানা গেছে, ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত দেশে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন লবণ মজুদ ছিল। চলতি বছরে রেকর্ড পরিমাণ ১২.২৪ লাখ মেট্রিক টন লবণ উৎপাদিত হয়েছে, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি। সভায় চট্টগ্রাম লবণ মিল মালিক, বিসিক ও সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী, বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

লবণের দাম বাড়ার গুজব ছড়িয়ে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করলে কঠোর শাস্তি

এদিকে কক্সবাজারে সাড়ে ছয়লক্ষ মেট্রিকটন লবণ মজুদ আছে। যা সারাদেশের চাহিদার চেয়ে বেশী এবং বাজারের সরবরাহও স্বাভাবিক আছে। তাই লবণের মূল্য বৃদ্ধির কোন কারণ নেই। আর যদি কেউ দাম বাড়ানোর অপচেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতকাল রাতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহীদ এটিএম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে জেলায় দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় এ তথ্য জানানো হয়।

ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো: আশরাফুল আফসারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: মাসুদুর রহমান মোল্লা,জেলা লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি মো: নুরুল কবির, জেষ্ঠ্য সাংবাদিক তোফায়েল আহমদসহ ব্যবসায়িক নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

এ সময় উচ্চ পদস্থ সরকারি কর্মকর্তা, বিসিক কর্মকর্তা, সাংবাদিক, জেলা লবণ মিল মালিক ও দোকান মালিক সমিতিসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি

You might also like