সাতক্ষীরায় জলাবদ্ধতা নিরসনে কৃষকদের অবস্থান কর্মসূচী পালন

সাতক্ষীরায় জলাবদ্ধতা নিরসনের দাবিতে কলারোয়া উপজেলার তিন গ্রামের কৃষকদের অবস্থান কর্মসূচি পালন। বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০ টা থেকে সাড়ে ১১ টা পর্যন্ত জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন তারা।

অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, কলারোয়া পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, সেচ কমিটির সভাপতি আরিজুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক, নুর ইসলাম, রত্না খাতুনসহ আরও অনেকে।

বক্তরা বলেন, আমরা কলারোয়া উপজেলার মুরারীকাটি, কুমারনল ও কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা। কৃষি কাজের উপর নির্ভর করে জীবন জীবিকা নির্বাহ করি। ২১ বছর যাবত বিলটিতে জলাবদ্ধতা থাকায় আমরা চাষকাজ করতে পারি না। এ পরিস্থিতিতে তিন গ্রামের সমন্বয়ে ধান চাষের জন্য একটি সেচ কমিটি গঠন করা হয়।

সেই কমিটির মাধ্যমে বিদ্যুতের শক্তিশালী মিটার ও পাম্প স্থাপন করে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয় করে পানি নিস্কাশন করে ধান চাষের উপযোগী করে আসছি। এদিকে, কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু জবর দখল করে বিলে মৎস্য ঘের করে আসছেন। সেচের কারণে তার ঘেরের পানি শুকিয়ে যায়।

বক্তারা আরও বলেন, সম্প্রতি বর্ষার কারণে পানি জমে ধানের ক্ষতি হতে পারে ভেবে উজানের একটি কালভার্টের মুখ আটকিয়ে দেওয়া হয়। পাশ্ববর্তী সরকারি মল্লিকের খাল দিয়ে পানি বেতনা নদীতে নামানোর জন্য একটি শক্তিশালী পাম্পের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু চেয়ারম্যান লাল্টু তার অবৈধ মৎস্যঘের রক্ষায় ঘেরে পানি ঢোকানোর জন্য খালের মুখ বন্ধ করে কালভাটের মুখটি খুলে দিয়ে আড়াই হাজার বিঘা ধানের জমিগ্রস্থ করেছে। এতে প্রায় দুই হাজার কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পথে বসেছেন। এ ব্যাপারে তদন্তপূর্বক জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা

অবস্থান কর্মসূচী শেষে জলাবদ্ধতার নিরসনের দাবিতে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

সাতক্ষীরা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মাহমুদুর রহমান বলেন, বিষয়টি জেলা প্রশাসক অবগত হয়েছেন। সরেজমিনে পরিদর্শন পূর্বক সুষ্ঠ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে কৃষকদের আশ্বস্ত করেছেন।

You might also like