সাভারে ৬ ইটভাটা গুড়িয়ে দিয়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা 

 পরিবেশ অধিদফতরের আইন না মেনে সাভারে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ছয়টি ইটভাটাকে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদফতর পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত। সেই সঙ্গে ইটভাটাগুলো যেন পরবর্তী সময়ে পরিচালনা করতে না পারে সেজন্য কিছু অংশ ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) রাতে একটি বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি জানায় পরিবেশ অধিদফতর।

এরআগে, দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সাভারের নামা গেন্ডা ও বিরুলিয়া ইউনিয়ন এলাকায় এই অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমেদ।

বিজ্ঞপ্তিতে পরিবেশ অধিদফতর জানায়, রাজধানীর পাশে সাভারে বিভিন্ন এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ইটভাটায় দীর্ঘদিন ধরে ইট পোড়ানো হচ্ছে। পরিবেশ দূষণ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকাসহ নানা অভিযোগে আজ অভিযান পরিচালনা করে মেসার্স কর্ণফুলী ব্রিকসকে নগদ ৫ লাখ, মেসার্স এখলাছ ব্রিকসকে ২০ লাখ, মেসার্স মুধুমতি ব্রিকসকে ৫ লাখ ও মেসার্স ফিরোজ ব্রিকসকে ৬ লাখ, বনগাঁও ইউনিয়নের সাদাপুর এলাকার মেসার্স মাহিন ব্রিকসকে ২০ লাখ ও মেসার্স রিপন ব্রিকসকে ৬ লাখ টাকাসহ সর্বমোট ৬২ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। তাৎক্ষণিক জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় একজনকে আটক করা হয়। পরে জরিমানা আদায় হলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমেদ বলেন, উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ঢাকার চারপাশের বিভিন্ন জেলার অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদে অভিযান চলছে। আগে ইটভাটার আংশিক ভেঙে দিয়ে বেশি টাকা জরিমানা করা হতো। কিন্তু ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কম জরিমানা করে ভাটার কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান চলবে।

এ সময় অভিযানে পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জহিরুল ইসলাম তালুকদার, এডি মোসাব্বের হোসেন মোহাম্মদ রাজীব, এডি হায়াত মাহমুদ রকিব, হিসাব রক্ষক উজ্জ্বল বড়ুয়াসহ ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অভিযানে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়।