হল খুলে গেলেও নতুন ছবির অভাবে বন্ধ বড় প্রেক্ষাগৃহগুলো

সব শঙ্কা দূরে ঠেলে ১৬ অক্টোবর থেকে দেশের সিনেমা হলগুলোতে চলচ্চিত্র প্রদর্শনের অনুমতি দেয়া হয়েছে। ৪০টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে সিনেমা ‘সাহসী হিরো আলম’। যেগুলো বেশিরভাগই মফঃস্বলের হল।

এদিকে বাকি ২৬ সিনেমা হলে চলছে পুরাতন ছবি, যেখানে বেশিরভাগই শাকিব খানের ছবি। সাত মাস পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে হল খুললেও বড় বড় প্রেক্ষাগৃহগুলো বেশিরভাগই বন্ধ। ঢাকার বড় সিনেমা হলের মধ্যে বলাকা, মধুমিতা, শ্যামলী এখনও খোলেনি।

সাত মাস বন্ধ থাকার পর ১৬ অক্টোবর সারাদেশে মোট ৬৬ টি প্রেক্ষাগৃহ চালু হয়েছে। কিন্তু বেশিরভাগ প্রেক্ষাগৃহই ঢাকার বাইরের। দেখানো হচ্ছে সুপারস্টার শাকিব খানের পুরনো সিনেমা।

ভালো মানের ছবি না থাকায় প্রেক্ষাগৃহ চালু করেনি ঢাকার বড় সিনেমা হলগুলো। পুরাতন সিনেমার মধ্যে শাকিব খানের ‘শাহেনশাহ’ চলছে যশোরের মনিহারে। এছাড়াও সারাদেশে হলে খুব বেশি দর্শকদের উপস্থিতি নেই। কেননা শাকিবের পুরনো ছবি দেখানো হচ্ছে।

প্রয়োজনে বাইরে থেকে ছবি আনবো তবুও কোনো মানহীন ছবি চালাবো না। সবচেয়ে ভালো হয় শাকিব খানের নতুন কোনো ভালো ছবি দিয়ে সিনেমা হল খুলতে পারলে। এমন সব কথা বলছেন বড় বড় সিনেমাহলের মালিকপক্ষ।

স্টার সিনেপ্লেক্সের বসুন্ধরা সিটি, সীমান্ত সম্ভার ও এসকেএস টাওয়ারের সবগুলো শাখা খুলবে ২৩ অক্টোবর। অনেক কর্মচারি দেশের বাড়ি চলে গেছে। তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা নিশ্চিত করে ২৩ অক্টোবর থেকে সিনেপ্লেক্সের সব শাখা চালু হবে।

নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি