হাটহাজারীতে প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা টিপে হত্যার অভিযোগ

চট্টগ্রাম হাটহাজারী উপজেলার ফটিকা গ্রামের মেহেদী পাড়ায় শ্বশুড় বাড়ীর লোকজন কর্তৃক প্রবাসীর স্ত্রী জান্নাতুন নাঈম নিশু(২০) নামের এক গৃহবধুকে গলা টিপে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয়রা জানায়, ৭জুলাই (শনিবার) বেলা দেড়টার দিকে নিশুকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাঁর শ্বশুড় ফোরক ও শ্বাশুড়ি স্বপনা বেগম  আলিফ হসপিটালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে, কর্মরত চিকিৎসক নিশুকে মৃত ঘোষনা করেন।

হাটহাজারী আলিফ হসপিটালের ডাঃ চৌধুরী মাহমুদ ইমতিয়াজ সুলতান জানান, বেলা দেড়টার দিকে নিহত নিশু কে হসপিটালে মৃত অবস্থায় নিয়ে আসেন তাঁর শ্বশুড় শ্বাশুড়ি। তবে প্রাথমিকভাবে তাঁর শরীরে কোন আঘাতের কোন চিহৃ দেখিনি।

হাটহাজারী মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর বলেন, এই ঘটনা নিয়ে এখনো পর্যন্ত কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেনি। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করব। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের নানা শফিউল্লাহ্ ও মামী পারভীন আক্তার জানান, বিয়ের পর থেকেই স্বামীর বাড়ীর লোকজন দ্বারা বার বার গৃহবধূ নিশু নির্যাতনের স্বীকার হয়ে আসছিলো। আজ আমাদের নিশুকে গলা টিপে হত্যা করে তাঁরা।

এদিকে ঘটনার রেশ ধরে নিহতের নানার বাড়ীর লোকজন অভিযুক্ত শশুড় মো.ফোরক (আনুমানিক বয়স ৬৫) কে গণপিটুনি দিয়ে গুরুতর আহত করেছে।

গুরুতর আহত শশুড়কে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে এবং হত্যার স্বীকার গৃহবধূর নিশুর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চমেক মর্গে প্রেরন করেছে মডেল থানা পুলিশ।

নিহত নিশু পাশ্ববর্তী রাউজান উপজেলার গহিরা চিকদাইর গ্রামের প্রবাসী সোলাইমানের কন্যা।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ফটিকার কড়িয়ার দিঘীর পাড়ের নানার বাড়ীতেই থাকতেন নিহত নিশুর পরিবার। মাত্র দেড় বছর পূর্বে একই গ্রামের মেহেদী পাড়ার মো.ফোরকের পুত্র প্রবাসী ফোরকানের সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয় জান্নাতুন নাঈম নিশুর (২০)। তাঁদের সংসারে ৫মাসের ফয়জুল্লাহ ফয়েজ নামের এক পুত্র সন্তান রয়েছে।