৬ই ডিসেম্বর আখাউড়া মুক্তি দিবস, যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবস পালিত হয়েছে

আজ ৬ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার ) আখাউড়া মুক্ত দিবস।  ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের এ দিনে পূর্বাঞ্চলের প্রবেশদ্বারখ্যাত মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম রণাঙ্গণ আখাউড়া উপজেলা পাক হানাদার মুক্ত হয়। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে এ রণাঙ্গনে যুদ্ধ করে শহীদ হয়েছিলেন শহীদ সিপাহী বীর শ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালসহ অসংখ্য মুক্তিযোদ্ধা। দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় উদযাপন উপলক্ষে আজ সকাল ৯টায় আখাউড়া উপজেলা ডাকঘরের সামনে জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে জাতীয় পতাকা ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের পতাকা উত্তোলন করেন স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানেরা। পরে স্মৃতি সৌধে এবং আখাউড়ার দরুইন গ্রামে বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন মুক্তিযোদ্ধারা।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোহাম্মদ  সামসুজ্জামান মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবু সাঈদ মিয়া, সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ জামসেদ শাহ, ডেপুটি কমান্ডার বাহার মিয়া মালদার, সাদেক উল্লাহ, নজরুল ইসলাম মুক্তসহ আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদ ও মক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যরা।

জানা যায়, ১৯৭১ সালের ৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় মুক্তিবাহিনী ও মিত্রবাহিনী সম্মিলিতভাবে আখাউড়া আক্রমণ করে। ৫ ডিসেম্বর সারা দিন, সারা রাত যুদ্ধের পর ৬ ডিসেম্বর আখাউড়া শত্রু মুক্ত হয়। পরে আখাউড়া ডাকঘরের সামনে বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা উত্তোলন করেন মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ। মুক্তিযুদ্ধের অনেক স্মৃতি বিজড়িত আখাউড়ার দুরুইন গ্রামে রয়েছে বীর শ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের সমাধি।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি