অস্ত্র নিয়ে শ্রেণিকক্ষে ২ শিক্ষার্থী, স্কুলে আতঙ্ক

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় একটি স্কুলের শ্রেণিকক্ষে দুই শিক্ষার্থীর অস্ত্র হাতে প্রবেশের ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে ওই স্কুলের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

বুধবার (১ জুন) স্কুল চলাকালীন সময় উপজেলার চরযশোরদি ইউনিয়নের বানেশ্বরদী উচ্চ বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বানেশ্বরদি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী তারেকুজ্জামান ও হাসিবুল হাসান ক্লাস চলাকালীন সময়ে দুটি চাইনিজ কুড়াল ও দুটি চাকু নিয়ে বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে প্রবেশ করে। এতে ভয়ে আঁতকে উঠে বাকি শিক্ষার্থীরা। পরে তারা বিষয়টি সহকারী শিক্ষক রুমেল খন্দকারকে জানালে শিক্ষক তাদের কাছ থেকে অস্ত্র উদ্ধার করে।

অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা হলেন, পার্শ্ববর্তী গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নের লোহাইড়-বনগ্রাম গ্রামের বক্কর মিয়ার ছেলে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী তারেকুজ্জামান ও অপরজন একই গ্রামের মারুফ ঠাকুরের ছেলে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী হাসিবুল হাসান।

এ ঘটনা জানাজানি হলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মজিবর রহমান ও সহকারী শিক্ষক রুমেল খন্দকার বিষয়টি তাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বা প্রশাসনকে না জানিয়েই অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের ছেড়ে দেয়। এতে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে অভিভাবকদের মধ্যে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা জানান, অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা প্রধান শিক্ষকের নিকটাত্মীয় হওয়ায় প্রধান শিক্ষক মজিবর রহমান ও সহকারী শিক্ষক রুমেল খন্দকার বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে।

এদিকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মজিবুর রহমান বলেন, ঘটনাটি স্থানীয়রা শালিশের মাধ্যমে মিমাংসা করেছে। আমি ঘটনার পরের দিন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি।

বক্তব্য জানতে চাইলে সহকারী শিক্ষক রুমেল খন্দকার সাংবাদিকদের বারবার কালক্ষেপণ করে তার মোবাইল ফোন বন্ধ করে রাখে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফজলুল হক বলেন, আমাকে প্রধান শিক্ষক ঘটনার পরের দিন বিষয়টি জানিয়েছে। বিষয়টি তারা মিটিং ডেকে সমাধান করতে চেয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) এন এম আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ঘটনাটি শুনেছি এবং সংশ্লিষ্টদের তদন্তের জন্য বলেছি  লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

You might also like