আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ছেন বোল্ট

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বোলার র‍্যাংকিংয়ে শীর্ষে আছেন ট্রেন্ট বোল্ট। স্বাভাবিকভাবেই তাকে ঘিরে বোলিং আক্রমণ সাজানোর কথা নিউজিল্যান্ড দলের।

কিন্তু বিশ্বকাপের মাসখানেক আগে কিনা অবসরের ভাবনা পেয়ে বসেছে এই বাঁহাতি ফাস্ট বোলারকে।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বোল্ট। পরিবারকে আরও বেশি সময় দেওয়ার জন্যই নাকি এমন সিদ্ধান্ত তার। তবে ধারণা করা হচ্ছে, বিশ্বব্যাপী ঘরোয়া ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগগুলোতে খেলে বেড়ানোর জন্যই ক্যারিয়ারের সুসময়ে জাতীয় দলের শৃঙ্খল থেকে মুক্ত হতে চাইছেন তিনি।

এক বিবৃতিতে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট জানিয়েছেন, ব্যস্ত সূচির কারণে পরিবারকে ঠিকমতো সময় দিতে না পারায় কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে সরে দাঁড়ানোর আর্জি জানিয়েছেন বোল্ট। তার সেই আর্জি গ্রহণ করেছে বোর্ড। তবে সময় ও সুযোগ বুঝে জাতীয় দলের ডাকে সাড়া দিতে পারবেন ৩৩ বছর বয়সী বোলার। কিন্তু এক্ষেত্রে তার নিজের মর্জি বাড়তি গুরুত্ব পাবে। আবার দল বাছাইয়ের ক্ষেত্রে তাকে বিবেচনায় নেওয়ার ব্যাপারেও নির্বাচকদের ইচ্ছা প্রাধান্য পাবে। সবমিলিয়ে বোল্টের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার প্রায় শেষ বলা চলে।

বোল্ট অবশ্য নিউজিল্যান্ড দলের সঙ্গে সাদা বলের সিরিজ খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর করছেন। আগামী অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও খেলতে দেখা যেতে পারে তাকে। কারণ ইনজুরি আর পারফরম্যান্সের গ্রাফ যেমনই হোক, তিনি এখনও কিউইদের সেরা বোলিং অস্ত্র। ফলে তাকে দলে নেওয়ার জন্য মুখিয়ে থাকবেন নিউজিল্যান্ডের নির্বাচকরা। কিন্তু বোল্টের লক্ষ্য এখন ঘরোয়া প্রতিযোগিতা এবং আসন্ন ইউএই টি-টোয়েন্টি লিগে খেলা। এরপর বিগ ব্যাশ লিগেও খেলতে পারেন। নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া মৌসুমের সূচির সঙ্গে সাংঘর্ষিক হওয়ায় অস্ট্রেলিয়ার এই লিগে এখন পর্যন্ত খেলা হয়নি বোল্টের। এখন থেকে সেই বাধাও দূর হলো। আর আইপিএল তো তার পছন্দের শীর্ষে আছেই।

প্রায় এক যুগ ধরে নিউজিল্যান্ডের বোলিং লাইনআপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বোল্ট। এ সময়ে ৭৮ টেস্ট, ৯৩ ওয়ানডে এবং ৪৪ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন কিউইদের জার্সিতে। গত বছর ভারতকে হারিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল জেতা দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ২০১৫ ও ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ এবং ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও দলের ফাইনালে উঠার পেছনে বড় ভূমিকা ছিল তার।

You might also like