আন্তর্জাতিক টি–টোয়েন্টিকে বিদায় বলে দিলেন মুশফিক

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশের উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের হয়ে আর না খেলার ঘোষণা দিতে মুশফিক বেছে নিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম।

টুইটার ও ফেসবুকে মুশফিক লিখেছেন, ‘আমি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরের ঘোষণা দিচ্ছি। এখন থেকে টেস্ট আর ওয়ানডে ক্রিকেটেই মনোযোগ দিতে চাই।’ তবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগসহ বিভিন্ন দেশের টি-টোয়েন্টিগুলোয় খেলে যাবেন বলেও জানিয়েছেন মুশফিক, ‘সুযোগ এলে আমি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলোতে খেলার জন্য তৈরি আছি।’

এশিয়া কাপ খেলে দেশে ফেরার একদিন পরই অবসরের এ সিদ্ধান্তের কথা জানালেন তিনি।

সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি দলে মুশফিকুর রহিমের জায়গা বেশ নড়বড়ে হয়ে যায়। জিম্বাবুয়ে সফরের টি-টোয়েন্টি দলে ছিলেন না, তাকে ‘বিশ্রাম’ দেওয়ার কথা জানিয়েছিল। তবে এশিয়া কাপ দিয়ে আবার ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম ফরম্যাটের দলে ফিরেছিলেন ৩৫ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।

এশিয়া কাপে ব্যাট হাতে এবং ফিল্ডিংয়ে চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ হয়েছেন মুশফিক। আফগানিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচে মাত্র ৫ রান করেছিলেন। আর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে উইকেটের পেছনে তার ভূমিকা নিয়েও সমালোচনা হয়েছে বিস্তর। তাসকিন আহমেদের বলে কুশল মেন্ডিসের ক্যাচ ছেড়েছেন, আবার এবাদত হোসেনের বলে লঙ্কান ব্যাটসম্যানের পরিস্কার এজ ঠাহর করতে পারেননি। সব সমালোচনার ইতি টেনে অবশেষে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকেই বিদায় বলে দিলেন তিনি।

মুশফিক আরও যোগ করেন, ‘আশা করছি এই দুই ফরম্যাটে আমি আরো কিছু নিয়ে আসতে পারবো দেশের জন্য। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) সহ অন্যান্য ফ্রেঞ্চাইজি লিগে আমি আমার খেলা চালিয়ে যাবো টি টোয়েন্টি ফরম্যাটে। আলহামদুলিল্লাহ। সবার নিকট কৃতজ্ঞতা। ধন্যবাদ। আল্লাহ হাফেজ।’

২০০৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে পদার্পণ করেন মুশফিক। টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘতম ক্যারিয়ারের ইতি টানার আগে ১৬ বছরে ১০২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি, রান করেছেন ১,৫০০। ২০১৮ সালে নিদাহাস ট্রফিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যারিয়ারসেরা ৩৫ বলে ৭২ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছিলেন এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার।