ঈদে ঘর উপহার পাচ্ছে কক্সবাজারের ৮৬৭ পরিবার

১২

কক্সবাজারের ৮ উপজেলায় আরও ৮৬৭টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার ঈদের আগেই জমিসহ নতুন ঘর পাচ্ছেন। এদের অনেকই এবার এই ঘরে ঈদ উদযাপন করবেন।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) সকাল ১০ সারাদেশের মতো কক্সবাজারেও আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিটি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমির মালিকানা দলিল ও নতুন বাড়ি হস্তান্তর করা হবে।

মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে তৃতীয় পর্যায়ে জমি এবং গৃহ প্রদান কার্যক্রমের ভার্চ্যুয়ালি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে গৃহহীন পরিবারগুলোকে প্রত্যেক উপজেলায় ঘরগুলো বুঝিয়ে দেবে উপজেলা প্রশাসন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আমিন আল পারভেজ জানান, ‘মুজিব শতবর্ষে বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন ঘোষণার সফল বাস্তবায়ন করতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় এ কার্যক্রম চলছে।

তিনি জানান,ঈদুল ফিতরের আগে সহায় সম্বলহীন পরিবারের মুখে হাসি ফুটাতে নতুন বাড়ি ও জমির মালিকানা দলিল হস্তান্তর করে ইদ উপহার হিসাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ ঘুর তুলে দিচ্ছেন।

সোমবার কক্সবাজার সদর উপজেলায় ১০৩ টি, চকরিয়ায় ২১০, পেকুয়ায় ৪০, ২০০, মহেশখালীতে ৩৫ টি, উখিয়া ২২০ টি টেকনাফ উপজেলায় ৪০ টি পরিবারকে এবং কুতুবদিয়া উপজেলায় ১৯ টি পরিবারসহ মোট ৮৬৭টি পরিবারকে নতুন বাড়ি ও জমির মালিকানা দলিল হস্তান্তর করা হবে। এর আগে দুই ধাপে জেলার ১৪২৫ টি ভূমিহীন পরিবারকে নতুন বাড়ি দেওয়া হয়। এবার তৃতীয় পর্যায়ে জেলায় মোট ১৪৬৩ টি ভূমিহীন পরিবারকে পর্যায়ক্রমে নতুন বাড়ি দেওয়া হবে।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, কক্সবাজার জেলায় মোট ৪ হাজার ৭৭২ টি ভূমি এ গৃহহীন পরিবার রয়েছে। এর মধ্যে দুটি পর্যায়ে ১ হাজার ৪২৫ টি পরিবারকে ইতিমধ্যে জমি ও গৃহ হস্তান্তর করা হয়েছে। তৃতীয় পর্যায়ে আরও ১ হাজার ৪৬৩ টি ঘর নির্মাণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এর মধ্যে ২৬ এপ্রিল ৮৬৭টি পরিবারকে জমি ও নতুন ঘর হস্তান্তর করা হবে। তৃতীয় পর্যায়ের মোট ১ হাজার ৪৬৩টি হস্তান্তর হয়ে গেলে জেলায় আরও ১ হাজার ৮৮৪ টি পরিবার গৃহহীন থাকবে তাদের পরবর্তীতে খাস জমি অথবা জমি ক্রয় করে নতুন বাড়ি নির্মাণ করা হবে বলে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, প্রতিটি ঘর নির্মাণে খরচ হয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা, প্রতিটি ঘর নির্মিত হচ্ছে ২ শতক জমিতে। দুই রুমের পাকা ঘরের সাথে রান্নাঘর, বাথরুম ও একটি বারান্দা থাকবে। প্রত্যেক ঘরে ঘরে জ্বলবে বিদ্যুতের আলো। পাশাপাশি বিশুদ্ধ পানি পানের জন্য রয়েছে টিউবওয়েল-এর ব্যবস্থা।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার কক্সবাজারের ৮৬৭ টি বাড়িসহ সারাদেশে মোট ৩২ হাজার ৯০৪ টি ভূমিহীন পরিবারকে নতুন বাড়ি ও জমির মালিকানা দলিল হস্তান্তর করা হবে।

You might also like
%d bloggers like this: