উৎসব আয়োজনে বর্ষ বরণ

১১৭

মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা, অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা’–এমন কল্যাণ প্রার্থনা দিয়েই শুরু আজ পহেলা বৈশাখ, বাঙালিদের দিন। বিগত বছরের মলিনতা মুছে দিয়ে নতুন আলোয় স্নাত বাঙালি জাতি আজ প্রবেশ করছে নতুন বর্ষে।  আজ ১৪২৬ বাংলা সালের প্রথম দিন। আজ শুধুই বাঙালিয়ানায় মেতে ওঠা, গর্ব ভরে নিজেদের ঐতিহ্য, নিজেদের সংস্কৃতিকে ধারণ করার দিন। আজ আবহমান বাংলার রূপ প্রকৃতিকে বরণ করার দিন। আজ যে বাঁশি বাজবে নগরে বা গ্রামীণ প্রান্তরে তার সুর  অমলিন বাঙালির প্রাণ থেকে নিঃসরিত হবে, মিশে যাবে হাজার বছর ধরে এই বাংলায় আমাদের প্রপিতামহদের বাজানো বাঁশির সুরে। আজ মাটির টানে ফেরা, বাঙালির শেকড় সন্ধানের দিন।

বাংলা বর্ষবরণের অন্যতম প্রধান ঐতিহ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা। পুরনো বছরের সকল অশুভ শক্তিতে বিদায় জানিয়ে মঙ্গলের বার্তা নিয়ে নানান সাজে সজ্জিত হয়ে ঢাক ঢোলের তালে তালে নেচে গেয়ে আনন্দ উল্লাসের মধ্য দিয়ে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করে সর্বস্তরের মানুষ।

‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশ’ এই প্রতিপাদ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবারো চারুকলার সামনে গিয়ে শেষ হয়।

নববর্ষকে বরণ করতে সকাল থেকেই শিশু, তরুণ, তরুণী থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী মানুষ ভিড় করতে থাকে চারুকলার সামনে। শিশুরা মুখে বৈশাখের নানা আল্পনা একে বাবা মা, পরিবার পরিজনদের সঙ্গে এসেছেন নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে।

শিশুদের সঙ্গে নিয়ে বর্ষবরণ করতে এসে খুশি অবিভাবকরাও। সকল অশুভ শক্তিকে ঝেড়ে ফেলে নতুনের আহ্বানে সামনে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় নিয়েই বর্ষবরণ করতে আগমন তাদের।

সহপাঠী কিংবা প্রিয়জনদের সঙ্গে নিয়ে বর্ষবরণ করতে চারুকলায় ভিড় করেছেন তরুণ তরুণীর দল। নানান সাজে সজ্জিত হয়ে আনন্দ উল্লাসে নববর্ষকে বরণ করে নিচ্ছে তারা।

 

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like