একটি ফেরিতেই পার হলো ৫ হাজারের বেশি যাত্রী

১৩৫

বাংলাবাজার-শিমুলীয়া নৌরুটে ফেরি সার্ভিস বন্ধ ঘোষনা করেছে বিআইডব্লিউটিসি। সীমিত পরিসরে শুধুমাত্র এ্যাম্বুলেন্সসহ জরুরী গাড়ি পারাপার করা হচ্ছে। তবে যাত্রী চাপে দুপুরে ফেরি চালু করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। এদিন শিমুলীয়া পাড় থেকে ছেড়ে আসা রো রো ফেরি এনায়েতপুরির একটি ট্রীপেই ৫ হাজারের বেশি যাত্রী পারাপার হয়।

যাত্রী চাপে ওই ট্রীপে কোন গাড়িই নিতে পারেনি ফেরিটি। এদিকে ঢাকা থেকে অনেক ভোগান্তি শেষে শিমুলীয়া ঘাটে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষার পর ফেরিতে পদ্মা পাড়ি দিয়ে বাংলাবাজার ঘাটে এসে কোন গাড়ি না পেয়ে যাত্রীরা মটরসাইকেল, ৩ চাক্কার থ্রী হুইলার,ঈজিবাইকে চড়ে কয়েকগুন ভাড়া গুনে গন্তব্যে যাচ্ছেন।

ঘাট সুত্র জানায়, শুক্রবার রাতে এ নৌরুটের ফেরি সার্ভিস বন্ধ ঘোষনা করে বিআইডব্লিউটিসি। তবুও শনিবার সকাল থেকেই উভয় পাড়ে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ শুরু হয়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে যাত্রী ও যানবাহনে শয়লাব হয়ে যায় ঘাট এলাকা। এদিন দক্ষিনাঞ্চল থেকে রোগী নিয়ে আসা এ্যাম্বুলেন্সগুলোকে বাংলাবাজার ঘাটে অপেক্ষা করতে দেখা যায় ঘন্টার পর ঘন্টা। অবশেষে যাত্রীচাপে বাধ্য হয়ে দুপুরে শিমুলিয়া থেকে মাত্র ২টি ফেরি চালু করে কর্তৃপক্ষ।

রো রো ফেরি এনায়েতপুরির সেকেন্ড মাস্টার ইনচার্জ আমির হোসেন বলেন, আজ শিমুলিয়া থেকেই একটি ট্রীপেই ৫ হাজারের বেশি যাত্রী পার করেছি। ওই ট্রীপে কোন গাড়ি উঠাতে পারিনি।

বিআইডব্লিউটিসির মেরিন কর্মকর্তা আহমেদ আলী বলেন, যাত্রীদের চাপ অনেক বেশি থাকায় ফেরিতে যানবাহন পারাপার বিঘ্ন ঘটছে।