কর্ণফুলী নদীর ওপর রেল ও সড়ক সেতু নির্মাণ শুরু আগামী বছর : রেলমন্ত্রী

১০৫

রেলপথ মন্ত্রী মোঃ নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, আগামী বছরের প্রথমদিকে কোরিয়ান সরকারের অর্থায়নে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে কর্ণফুলী নদীর ওপর সেতু নির্মিত হবে যেখানে রেলপথ এবং সড়ক একসাথে থাকবে।

মন্ত্রী আজ চট্টগ্রামের কালুরঘাটে কর্ণফুলী নদীর ওপর সেতু নির্মাণ স্থান পরিদর্শনকালে উপস্থিত সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

এ সময় তিনি বলেন, এই সেতুটি আগেই নির্মাণ করা যেত। এই স্থানে রেল ও সড়ক সেতু পৃথকভাবে নির্মিত হবে কিনা এ বিষয়ে একটি সংশয় ছিল। পরে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে রেল ও সড়ক সেতু একসাথে নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়। এ অনুযায়ী বিদেশি ঋণদানকারী সংস্থা কোরিয়ান ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন ফান্ড (ইডিসিএফ) এর সাথে আলোচনা চলছে। আশা করা যাচ্ছে আগামী বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ এর মধ্যে এ সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা যাবে।

রেলমন্ত্রী বলেন, সেতু নির্মাণের ডিজাইন চূড়ান্ত ও স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। চট্টগ্রামবাসীর জন্য যেমন এ সেতুটি খুবই দরকার তেমনি ভবিষ্যতে কক্সবাজার পর্যন্ত সরাসরি রেললাইন সংযোগ স্থাপনের জন্য সেতুটি নির্মাণ জরুরি। ২০২২ সালের মধ্যে কক্সবাজার পর্যন্ত রেললাইন চালু হয়ে যাবে। এ সময়ের মধ্যে যাতে সেতুটির নির্মাণ শেষ করা যায় সে চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

সেতুটি নির্মিত হলে নিরবচ্ছিন্ন রেল পরিবহন সেবা নিশ্চিত করা যাবে এবং চট্টগ্রাম-কক্সবাজার করিডোরের অপারেশনাল বাধা দূর করা যাবে। স্থানীয় বাসিন্দাদের জীবনমান উন্নত করা এবং আঞ্চলিক বিনিময় সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে। মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্রবন্দরের জন্য বৃহত্তর করিডর তৈরি হবে, বাণিজ্যিক রাজধানীর যানজট হ্রাস পাবে এবং ট্রান্স এশিয়ান রেলওয়ে নেটওয়ার্কের অংশবিশেষ হিসেবে এটি কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

পরিদর্শনকালে স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ মোসলেম উদ্দিন, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব প্রণব কুমার ঘোষ, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মোঃ শামসুজ্জামান সহ রেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি

You might also like