কুমিল্লায় নির্যাতন সইতে না পেরে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর আত্মহত্যা, স্বামী গ্রেপ্তার

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ রুমি আক্তার কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছেন। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার মালাপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম চণ্ডিপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী মনির হোসেনকে গ্রেপ্তার করে শনিবার (২২ অক্টোবর) সকালে তাকে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ।

জানা যায়, প্রায় ৩ বছর আগে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার জগতপুর গ্রামের অদু মিয়ার মেয়ে রুমি আক্তারের সঙ্গে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার পশ্চিম চণ্ডিপুর গ্রামের মতিউর রহমান সরকারের ছেলে মনির হোসেনের বিয়ে হয়।

গৃহবধূ রুমি আক্তারের মা পারুল আক্তার বলেন, বিয়ের পর থেকেই মনির বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের জেরে আমার মেয়েকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিল। এ নিয়ে একাধিকবার স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠকও করা হয়েছে। এরপরও মনির তার বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক থেকে বের হয়ে আসেনি বরং বিভিন্নভাবে আমার মেয়ের ওপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। শুক্রবার বিকেলে স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে আমার মেয়ে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এসময় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয় এবং পরে অবস্থার অবনতি দেখে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়।

ব্রাহ্মণপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান রুবেল বলেন, গৃহবধূর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য শনিবার সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েরছ। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর ওই গৃহবধূর স্বামী মনির হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

You might also like