কেরানীগঞ্জে গ্যাসের আগুনে দগ্ধ পরিবারের কেউই বাঁচলেন না

ঢাকার কেরানীগঞ্জে একই পরিবারের শিশুসহ ছয়জন দগ্ধ হওয়ার ঘটনায় চিকিৎসাধীন ইয়াসিনও (১২) মারা গেছে। এ ঘটনায় চিকিৎসাধীন একে একে সবাই মারা গেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনিস্টিউটের আবাসিক সার্জন ডা. আইউব হোসেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৭টায় সর্বশেষ বেঁচে থাকা ইয়াসিন নামে এক শিশু নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। তার শরীরের ২৮ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল। পরিবারের দগ্ধ ছয়জনই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবহিত করা হয়েছে।

এর আগে গত ৩০ আগস্ট কেরানীগঞ্জের মান্দাইল জেলেপাড়া এলাকার ওই পরিবারে মোমবাতি জ্বালাতে গিয়ে গ্যাসের চুলার লিকেজ থেকে শিশুসহ ছয়জন দগ্ধ হন। পরে সবাইকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।

দগ্ধ ব্যক্তিরা হলেন–মোছা. বেগম (৬০) ২৩ শতাংশ, মোছ. মারিয়ম (৮) ৬০ শতাংশ, মোছা. সনিয়া (২৬) ২৩ শতাংশ, মো. ইয়াসিন (১২) ২৮ শতাংশ, মো. শাহাদাত (২০) ৫২ শতাংশ, মোছা. ইদুনী বেগম (৫০) ৫০ শতাংশ দগ্ধ।

You might also like