কোহলিকে ক্রিকেট খেকে নিষিদ্ধ করা হোক : ভন

২২ গজে ব্যাট হাতে যেমন ঝড় তোলেন, তেমনি নিয়মিত বিতর্কেও জড়ান বিরাট কোহলি। বিশেষ করে তার অদ্ভুত অঙ্গভঙ্গি আর প্রতিপক্ষের ওপর চড়াও হওয়া নিয়ে কম সমালোচনা হয়নি । এবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েও তেমনই এক বিতর্কে জড়িয়েছেন ভারতের টেস্ট অধিনায়ক।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ডিআরএস নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ডিন এলগারের এক রিভিউ নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন তিনি। যেখানে বিরাট কোহলির আচরণ বিতর্কের আগুন জ্বেলে দিয়েছে। ভারত অধিনায়কের এমন আচরণের পর তাকে নিষিদ্ধ করার দাবি তুলেছেন মাইকেল ভন।

দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় ইনিংসের ২১তম ওভারে ভারতীয় স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বল গিয়ে আঘাত হানে এলগারের প্যাডে। ভারতের এলবিডব্লিউর আবেদনে ইতিবাচক সাড়াও দেন আম্পায়ার মারাইস ইরাসমাস। পরে দক্ষিণ আফ্রিকার রিভিউতে বল ট্র্যাকিংয়ের সময় দেখা যায় ডেলিভারিটা চলে যেতো স্টাম্পের ওপর দিয়ে।

আর বল ট্র্যাকিংয়ের এই টেকনোলজিতে সন্দেহ পোষণ করেন কোহলি। বিরক্ত কোহলিকে স্ট্যাম্প মাইক্রোফোনে বলতে শোনা গেছে, ‘নিজেদের দল যখন বল চকচকে বানায়, তখন তাদের ওপর মনোযোগ দাও, প্রতিপক্ষের ওপর নয়। সবসময় লোকজনকে ধরার চেষ্টা চলছেই।

শুধু তাই নয় কোহলি আরও বলেন, ‘ব্রডকাস্টাররা এভাবেই টাকা কামায়। ওয়েল ডান ডিআরএস।’ আর কোহলির এমন আচরণের পর আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে ক্রিকেটবিশ্বে। ফক্স স্পোর্টসের ম্যাচ পরবর্তী আলোচনায় সমালোচনা করে মাইকেল ভন জোনান, ‘এটা ভারতীয়দের কাছ থেকে খুব লজ্জাজনক। সিদ্ধান্ত আপনার পক্ষে যাবে, অনেক সময় বিপক্ষে যাবে।’

এছাড়া ভারত অধিনায়কের এমন আচরণের জন্য তাৎক্ষনিক আইসিসির হস্তক্ষেপ চান ভন। খেলার মাঠে একজন দলপতি যতটাই হতাশ হোক না কেন, এমন আচরণ গ্রহণযোগ্য নয় বলে দাবি সাবেক এই ক্রিকেটারের।

কেবল আইসিসির হস্তক্ষেপ নয়, কোহলিকে নিষিদ্ধের দাবিও তুলেছেন এই ইংলিশ ধারাভাষ্যকার, সম্ভব হলে কোহিলিকে জরিমানা দেয়া উচিত বলেও অভিমত তার ।

You might also like
%d bloggers like this: