ক্যানবেরায় শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকি পালিত

যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জেষ্ঠ্যে পুত্র বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা শহীদ শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকি বাংলাদেশ হাইকমিশন, ক্যানবেরায় পালিত হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

আজ (বুধবার) অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোঃ সুফিউর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত আলোচনাসভায় স্থানীয় বাংলাদেশ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ শেখ কামালের জীবন ও কর্মের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন। শেখ কামালের দুরদর্শীতা, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে অতুলনীয় অবদান, সাংগঠনিক নেত্বত্ব এবং তার রাজনৈতিক পরিচয়কে পিছনে ফেলে স্বমহিমায় উদ্ভাসিত হওয়ার নানা বিষয় আলোচকগণ তাঁদের বক্তব্য তুলে ধরেন। শেখ কামাল ছিলেন যুব সমাজের জন্য আর্দশ। তার চিন্তা ও মননে ছিল বাংলাদেশের যুব সমাজকে মুক্ত মনের করে গড়ে তোলা; ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে এগিয়ে নেওয়া।

হাইকমিশনার তার বক্তব্য বলেন- শেখ কামাল বাঙালি জাতির জন্য স্বল্প সময়ে এক ধুমকেতুর মতো আবির্ভাব হয়েছিলেন। তরুণদের মন ও মনন এর উৎকর্ষ সাধনের জন্য তিনি নানাবিধ সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড গ্রহণ করেছিলেন। তার আকর্ষনীয় ব্যক্তিত্বের কারণে তিনি সকলের কাছে প্রিয় পাত্র হয়ে ছিলেন এবং পারিপার্শ্বিক সবাইকে আলোকিত করেছিলেন।

আলোচনাসভার পূর্বে শহীদ শেখ কামালের জীবন ও কর্মের উপর নির্মিত একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়। স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বিধিনিষেধ অনুসরণ করে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ মাস্ক পরিধান এবং সামাজিক দূরুত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।